বৃহস্পতিবার | ১লা অক্টোবর, ২০২০ ইং |

কারাগার থেকে পরীক্ষা: ৫ বিষয়ে লেটার মার্কস

ভারতের মাওবাদী সংগঠনের সক্রিয় সদস্য ছিলেন তিনি, পরে একজন শীর্ষস্থানীয় মাওবাদী নেত্রী। তার নাম ঠাকুরমণি মুর্মু। মাওবাদীরা যাকে তারা বলে ডাকে।

কয়েকটি মামলায় মাওবাদী এই স্কোয়াড নেত্রী এখন পশ্চিমবঙ্গের দমদম কারাগারে। আর সেখান থেকেই মাধ্যমিক পরীক্ষায় ৮৩ শতাংশ নম্বর পেয়ে কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়েছেন তিনি।

তারার বিরুদ্ধে ভারতের পশ্চিম মেদিনীপুরের সাঁকরাইলের ওসি অপহরণ, শিলদার ইএফআর ক্যাম্পে হামলাসহ একাধিক মামলা আছে। দেড় বছর আগে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে জানানো হয়, দমদম কারাগারে আসার পর থেকেই ছোট নানা বিষয় নিয়ে প্রায়ই অভিযোগ করতেন তারা। এ ছাড়া অন্য কয়েদির মতো নিয়ম মেনে চলতেন না তিনি। ওই কারাগারের মনোরোগ বিশেষজ্ঞ লিলি পোদ্দার তারাকে ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে কারাগারেই তার দায়িত্ববোধ জাগাতে চেষ্টা করেন। তারার হাতে তিনি তুলে দেন বই, পড়াতে শুরু করেন। আর তারাও মন দেন পড়াশোনায়।

প্রতিবেদন থেকে আরো জানা যায়, চলতি বছরের জুনে রবীন্দ্র মুক্ত বিদ্যালয় থেকে পরীক্ষায় বসেন মাওবাদী এই নেত্রী। গত বৃহস্পতিবার পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে তার। আর সেখানে সাত বিষয়ের মধ্যে পাঁচটিতে লেটার নিয়ে ৫৭৯ নম্বর পেয়েছেন তারা। আর কয়েক দিনের মধ্যেই উচ্চ মাধ্যমিকের প্রস্তুতিও শুরু করবেন তিনি।

কারাগারে শুধু পড়ালেখাই করেননি তারা, সেচ্ছাসেবী এক সংগঠনের সাহায্যে শুরু করেন ছবি আঁকা শেখা। এ ছাড়া সাঁওতালি ভাষার গানও শুরু করেন মাওবাদী এই নেত্রী।

দমদম কারাগারের সুপার দেবাশিস চক্রবর্তী বলেন, মানুষের ভিতরে খিদে থাকে। আমার মেয়ে ঠাকুরমনি তার খিদেটা সুন্দরভাবে প্রস্ফুটিত করেছে।

ঠাকুরমনি মুর্মু বা তারা মাওবাদীদের মিলিটারি কমিশনের রাজ্য সম্পাদক বিকাশের স্ত্রী। এ দুজনই ছিলেন ভারতের পুলিশের মোস্ট ওয়ান্টেড তালিকায়।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Enjoy this blog? Please spread the word :)