বুধবার | ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং |

সকল কল্পনার জল্পনার অবসান ঘটিয়ে ১৮ আসনে নৌকার টিকিট হাতে পেয়েছেন সাহারা খাতুন

রাসেল খান,
ঢাকা ১৮ আসনের নৌকা প্রতীক এখন সাহারা খাতুনের হাতে। সকল কল্পনা জল্পনার অবসান ঘটিয়ে সেই কাঙ্খিত চিঠি হাতে পেয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডোলির অন্যতম সদস্য বর্তমান সাংসদ এ্যাড.সাহারা খাতুন। তৃতীয় বারের মতো আওয়ামী লীগের মনোনায়ন হাতে পেয়ে এ আসনে এবারও চমক দেখিয়েছেন সাহারা খাতুন। স্থানীয় ও বহিরাগত মিলে প্রায় ৮-১০ জন প্রার্থী এখানে নৌকার টিকেট পাওয়ার অপেক্ষায় থাকলেও শেষ পর্যন্ত টিকতে পারেননি কেউ।

একাদশ জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর সংঘবদ্ধ প্রচারণা চালিয়েও সাহারা খাতুনের মনোনয়ন আটকাতে পারেননি বিরোধীরা। আওয়ামী লীগের একটি সূত্র জানায়, স্থানীয়দের দাবি দাওয়া সম্বলিত একাধিক পর্যবক্ষেণ নিয়ে কাজ করেছে অন্তত তিনটি জরিপ সংস্থা।

সূত্র জানায়, এসব জরিপের তথ্যমতে স্থানীয় যারা মনোনয়ন দাবি করছেন তারা কেউ এখনো এমপি হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করতে পারেননি বলে রিপোর্টে উঠে আসে। তাছাড়া এসব মনোনয়নপ্রত্যাশী তৃণমূলেও সর্বাধিক গ্রহণযোগ্য নয়। জরিপে উঠে আসে, বর্তমান সাংসদ সাহারা খাতুন এ আসনে গ্রহণযোগ্য একজন নেত্রী। দূর্নীতি অন্য কোনও নেতিবাচক কর্মকাণ্ডের কোনও অভিযোগ গত দশ বছরেও কেউ তুলতে পারেননি। তাই তাকে অাবারও মনোনয়ন দিলে সকলের পক্ষেই মেনে নেওয়া সম্ভব। স্বজনপ্রীতিসহ দলীয় বিভাজনের বিষয়ে যেসব অভিযোগ করা হচ্ছিল সেগুলোর ব্যপারে গ্রহণযোগ্য কোনও প্রমানও পাওয়া যায়নি।

অপর দিকে এ আসনে মহাজোটের হয়ে জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের নির্বাচন করতে চাইলেও ঢাকা থেকে জাতীয় পার্টিকে তিনটির বেশি আসন ছাড় দিতে রাজি নয় আওয়ামী লীগ। এমন প্রেক্ষাপটে সাহারা খাতুন ও জিএম কাদেরকে গণভবনে ডেকে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। আওয়ামী লীগ সভাপতির প্রয়োজনীয় নির্দেশনা পেয়ে অবশেষে সরে পড়েন জিএম কাদেরও। তিনি ঢাকা-১৮ থেকে সরে পড়লেও নীলফামারী-৩ আসন থেকে এবারও প্রার্থী হচ্ছেন।

সাহারা খাতুনের মনোনয় পাওয়ার বিষয়ে স্থানীয় ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আফসার উদ্দিন খান বলেন, আপা নমিনেশন পেয়েছেন এতে আমরা আনন্দিত। এখন আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে সকলে মিলে নৌকাকে বিজয়ী করে ওনাকে তৃতীয় বারের সংসদে পাঠনো। এজন্য আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। সবাইকে নিয়েই নির্বাচনের মাঠে থাকবো আমরা। কে কি করলো, এটা দেখে সময় নষ্ট না করে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করে প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করাই হবে আমাদের একমাত্র লক্ষ্য।

উত্তরা ৫২ নং ওয়ার্ড যুবলীগের প্রভাবশালী সভাপতি প্রার্থী সোহেল রানা বলেন, আমরা আগেও বলেছিলাম সাহারা আপা পাবেন। এখন আমরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে মাঠে নেমে আপার বিজয় সুনিশ্চিত করবো।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Enjoy this blog? Please spread the word :)