মঙ্গলবার | ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং |

পাকিস্তান দূতাবাসে ফখরুলের গোপন বৈঠক: আ.লীগ

নিজস্ব প্রতিবেদক | রবিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৮:
নির্বাচনের মাসে পাকিস্তানের দূতাবাসে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের গোপন বৈঠক নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র বলে মন্তব্য করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

রবিবার (৯ ডিসেম্বর) দুপুরে দলের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান।

আব্দুর রহমান বলেন, একটি রাষ্ট্রের সঙ্গে আরেকটি রাষ্টের কূটনৈতিক সম্পর্কের কারণে দূতাবাসের সঙ্গে যাতায়াত থাকতে পারে। তবে বিজয়ের এই মাসে আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে পাকিস্তান দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাত জনমনে প্রশ্নের সঞ্চার করে। একদিকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে লন্ডনে তারেক রহমানের সঙ্গে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই এর সঙ্গে গোপন বৈঠক, অন্যদিকে পাকিস্তানি দূতাবাসে মির্জা ফখরুলের সাক্ষাৎ ও গোপন বৈঠক ষড়যন্ত্রের আভাস দেয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘দুই বৈঠক একই সূত্রে গাঁথা। সে জায়গা থেকে আমরা মনে করি, এই সাক্ষাতে আসন্ন নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্রের অংশ এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনার রাজনীতিকে বিনষ্ট করার দুরভিসন্ধি রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত রাজনৈতিক নয়, আদর্শিক জোট। গতকাল আসন ভাগাভাগির মাধ্যমে আবারো প্রমাণিত হয়েছে। বিএনপির সঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের নয় মূল গাটছড়া জামায়াত।’

বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে সংঘাতের বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘দলটির মনোনয়ন বাণিজ্য রাজনৈতিক সাংস্কৃতিক অধপতিতের বিষয়। বিএনপির মনোনয়ন বাণিজ্যের বিষয়টি দেশবাসীর কাছে প্রমাণিত হয়েছে। বিএনপির মনোনয়ন বাণিজ্যের নেপথ্যে তারেক রহমান। মনোনয়ন বাণিজ্যের মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে তারা রাজনৈতিক দল নয়, করপোরেট সংস্থা।

বিএনপি অপরাজনৈতিক শক্তি, তাই মনোনয়ন বাণিজ্য তাদেরই মানায় বলেও জানান তিনি।

জাতীয় পার্টিকে কতগুলো সিট দেয়া হচ্ছে জানতে চাইলে রহমান বলেন, ‘তাদের সঙ্গে সন্তষজনক মিমাংসা হবে। বিকেল নাগাদ জাতীয় পার্টির সঙ্গে আওয়ামী লীগের আসন ভাগাভাগির বিষয়টি চূড়ান্ত হবে।’

৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কোনো বিদ্রোহী প্রার্থী থাকবে না। আওয়ামী লীগের সকল বিদ্রোহী প্রার্থী আজকের মধ্যে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেবে বলে যোগ করেন আবদুল রহমান।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের আরেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, আহমদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. আফজাল হোসেন, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী প্রমুখ।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

Enjoy this blog? Please spread the word :)