রবিবার | ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং |

বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিয়ে ডিএনসিসি ৫২ নম্বর ওয়ার্ডে প্রতিক পেয়ে নির্বাচনে প্রচারনা করছেন যারা

রাসেল খান,
প্রতীক হাতে পেয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) নতুন ৫২ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থীরা তাদের নির্বাচনের প্রচার প্রচারণা ইতিমধ্যে শুরু করে দিয়েছেন । ১০ ই ফেব্রুয়ারি বিকেলে ৫২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীদের প্রতীক। প্রতীক হাতে পেয়ে লিফটের আকারে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্যাপক প্রচারণা চালাচ্ছেন তা চোখে পড়ার মতো
জানা যায় ২০১৭ সালের জুলাই মাসে হরিরামপুর ইউনিয়নের কাঠামো ভেঙে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নতুন ৫২ নম্বর ওয়ার্ড গঠন করা হয়। ৫২ ওয়ার্ডের এলাকাগুলো হলো-বাউনিয়া, বাদালদি, উলুদাহা, চান্দুরা-মান্দুরা, শোলাটি, দলিপাড়া, আহালিয়া, পাকুরিয়া,। এই ওয়ার্ডটির মোট ভোটার সংখ্যা প্রায় ২৯ হাজার।
রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে ওই ওয়ার্ড থেকে মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন মোট ১৪ জন প্রার্থী। তবে ঋণ খেলাপীসহ অন্যান্য কারনে ৪ জনের মনোনয়ন বাতিল করে দেওয়া হলেও পরে বৈধ্যতা ফিরে পায় ২ জন। বর্তমানে ১২ জন প্রার্থী এখন শক্ত অবস্থানে প্রচার-প্রচারণার কাজ করছেন। এই ওয়ার্ডে মোট ১০ জনই স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও এর বিভিন্ন অঙ্গসহযোগী সংগঠনের সঙ্গে বিভিন্ন পদে যুক্ত আছেন। একজন প্রার্থী সরাসরি কোন পদ-পদবীতে না থাকলেও আওয়ামী লীগকে সমর্থন করেন। এর বাইরে ওই ওয়ার্ডে জাতীয় পার্টির একজন প্রার্থী আছেন।
ওয়ার্ডেটিতে প্রতীক নিয়ে প্রার্থিতা করছেন তুরাগ থানা আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক সদস্য ও প্রস্তাবিত সভাপতি মো. সোহেল রানা করাত মার্কা , হরিরামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুল ইসলাম (ইকবাল মাস্টার) পেয়েছেন টিফিন বাটি মার্কা ,তুরাগ থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক করিম খান পেয়েছেন মিষ্টি কুমড়া মার্কা , হরিরামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ৯ নং ওয়ার্ড মেম্বার ইব্রাহিম গণি পেয়েছেন ব্যাডমিন্টন মার্কা, সাবেক ইউপি সদস্য মো. দেলোয়ার হোসেন পেয়েছেন রেডিও মার্কা, তুরাগ থানা আ. লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডি হালিম পেয়েছেন ট্রাক্টর মার্কা , তুরাগ থানা আওয়ামী লীগের সদস্য রাইসুল ইসলাম লিটন পেয়েছেন কাঁটাচামচ মার্কা , তুরাগ থানা আওয়ামী লীগের ফরিদুল ইসলাম সহ সাবেক ৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি রতন কুমার সরকার পেয়েছেন ঝুড়ি মার্কা,
হরিরামপুর ইউনিয় আওয়ামী লীগ ও তুরাগ থানা আ. লীগ সূত্র জানায়, এই ১১ জন প্রার্থীরা তাদের প্রতীক নিয়ে উন্মুক্তভাবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারছেন। মনোনয়নকে কেন্দ্র করে দলীয় কোন্দল এড়াতেই এমন সিন্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা যায় । এক্ষেত্রে যে প্রার্থীর জনসমর্থন ও জনপ্রিয়তা বেশি থাকবে সেই প্রার্থীই নির্বাচিত হতে পারবে।
অন্যদিকে জাতীয় পার্টির সমর্থিত একজন প্রার্থী মো. ইব্রাহীম হোসাইন পেয়েছেন ঘুড়ি মার্কা, ঠেলাগাড়ী মার্কায় প্রার্থীতা করছেন ব্যবসায়ী সেলিম মিয়া।
গতকাল রোববার ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকা গুরে চায়ের দোকান সহ ছোট বড় হোটেল গুলোতে নির্বাচনী আমেজে চোখে পরার মত। ইতিমধ্যে প্রার্থীরা তাদের প্রতীক হাতে পেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচারণা শুরু করে দিয়েছে। এলাকাবাসীর দোয়া ও সমর্থন চেয়ে বেশ কিছু প্রার্থীর রঙিন ব্যানার চোখে পড়ার মত। এদিকে প্রচার প্রচারণা শুরু করে কাউন্সিলর প্রার্থীরা ভোটারদের দুয়ারে দুয়ারে ভোট চাইতে শুরু করেছেন। উক্ত ওয়ার্ডের ভোটারা তাদের যোগ্য প্রার্থী খুঁজে নিতে ব্যস্ত। তবে কেউ কেউ অভিযোগ করে বলছেন নতুন নতুন প্রার্থীদের আমরা অনেকেই চিনি না কিছু কিছু প্রার্থীরা এখনও ভোটারদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করতেও দেখা যায়নি।
বেশ কয়েকজন কাউন্সিলর প্রার্থীর সঙ্গে কথা হলে প্রার্থীরা সবাই এলাকার অবকাঠামোগত উন্নয়নে জোড়ালো পদক্ষেপ নেওয়ার কথা প্রতিবেদককে জানান । এর মধ্যে রাস্তাঘাট, পানি ও পয়নিস্কাশন নালা নির্মান, পার্ক, খেলার মাঠ ও বিনোদন কেন্দ্র এবং কমিউনিটি সেন্টার নির্মান করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট চাইছেন প্রার্থীরা।
তরুণ প্রার্থী যুবলীগ সদস্য সোহেল রানা মনে করছেন, গত এক দশক ধরে দল ক্ষমতায় থাকার পরেও ৫২ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় কোন দৃশ্যমান উন্নয়ন কার্যক্রম হয়নি। স্থানীয় দলের অনেক পদধারী নেতারা ইউপি সদস্য থেকে শুরু করে বিভিন্ন পদ-পদবীতে থাকলেও উদ্যোগের অভাবেই কোন উন্নয়ন হয়নি। তাই নেতৃত্বের প্ররিবর্তন প্রয়োজন বলে মনে করেন এই নেতা। নির্বাচনে জয়ী হলে তরুণ প্রজন্মকে সঙ্গে নিয়ে ওয়ার্ডটিকে একটি আদর্শ ওয়ার্ড গড়ে তোলার কথা তিনি জানান।
তুরাগ থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক করিম খান বলেন, নির্বাচনে আমার মার্কা মিষ্টি কুমড়া আমি যদি নির্বাচিত হই বিগত দিনে যে অপূর্ণ কাজগুলো রয়েছে এবং এলাকার ড্রেনেজ ব্যবস্থা এবং রাস্তাঘাট নির্মাণ সহ আমার ওয়ার্ডকে মাদকের জিরো টলারেন্স করব।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

Enjoy this blog? Please spread the word :)