মঙ্গলবার | ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং |

চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ-সজীব ওয়াজেদ জয়

নিউজ ডেস্ক | সোমবার,২২ এপ্রিল ২০১৯:
‘আমাদের বিপিও ইন্ডাস্ট্রিকে দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হবে না’ অনুকরণ করে নয়, নতুন প্রযুক্তির সঙ্গে নিজেদের উদ্ভাবনী শক্তিকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশ নিজেদের মেধার মাধ্যমেই চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের নেতৃত্ব দেবে বলে আশাবাদ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

রবিবার (২১ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ের বলরুমে বিপিও সামিট-২০১৯-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রযুক্তির বাজারে আজকের তারুণ্য আগামীতে মূল চালিকাশক্তি হবে আশাবাদ জানিয়ে জয় বলেন, “আমার স্বপ্ন, আগামীতে হাইটেক সেক্টরে কাজ করবে বাংলাদেশের তরুরা। কেবল চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে অংশ নয়, নেতৃত্বস্থানীয় অবস্থানেও আসবে বাংলাদেশ”।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সজীব ওয়াজেদ জয় আরো বলেন, “বিশ্বে সবচেয়ে দ্রুত বেড়ে ওঠা খাত বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং (বিপিও)। প্রযুক্তি ব্যবসায়, বিশেষ করে আউটসোর্সিংয়ে নিজেদের অবস্থান করে নিয়েছে বাংলাদেশ। আগামী তিন বছরের মধ্যে প্রযুক্তি খাত থেকে ৫ বিলিয়ন ডলার আয়ের লক্ষ্য ঠিক রয়েছে। এরই মধ্যে আইসিটি খাত থেকে গত বছরে ১ বিলিয়ন ডলার অর্জিত হয়েছে”।

এছাড়াও আত্মনির্ভরশীল হয়ে নিজেদের চিন্তাভাবনা ও উদ্ভাবন দিয়ে এগিয়ে যাওয়ার কথা বলেন সজীব ওয়াজেদ জয়। তিনি বলেন, “ভারতের আইসিটি খাতের সঙ্গে আমাদের কোনো প্রতিযোগিতা নেই। আউটসোর্সিং খাতে তারা এখন সারাবিশ্বে নেতৃত্ব দিচ্ছে। ওদের সঙ্গে এখনই লড়াই করতে পারব না। সেটা আমাদের জন্য সত্যি একটি কঠিন চ্যালেঞ্জ। আমার বিশ্বাস, এটা আমাদের করতেও হবে না। আমাদের বিপিও ইন্ডাস্ট্রিকে দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হবে না, দরকার নেই তাদের অনুকরণ করার”।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক, আইসিটি সচিব এন এম জিয়াউল আলম, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস এবং বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক।

উল্লেখ্য, ট্রান্সফমিং সার্ভিস টু ডিজিটাল প্রতিপাদ্য নিয়ে আইসিটি বিভাগ ও বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কলসেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিংয়ের যৌথ উদ্যোগে চতুর্থবারের মতো দুই দিনব্যাপী এ সামিট অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সামিটে বিভিন্ন সেশনে ৪০ জন স্থানীয় প্রতিনিধি এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, মালয়েশিয়া, সিংগাপুর, ভারতসহ বিভিন্ন দেশের বিপিও খাতের ২০ জন বিদেশি প্রতিনিধি অংশ নেবেন।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

Enjoy this blog? Please spread the word :)