বুধবার | ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং |

অভাবের কারণে রাতের আধাঁরে রিকশা চালাচ্ছেন সেই জাহালম

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোমবার,৩ জুন ২০১৯:
দুদকের করা ভুল মামলায় আবু সালেক নামে এক ব্যক্তির পরিবর্তে আসামি হয়ে দীর্ঘ ৩ বছর কারাভোগ করে নরসিংদীর পলাশ উপজেলায় ঘোড়াশাল বাংলাদেশ জুটমিলের শ্রমিক জাহালম। পরে উচ্চ আদালতের নির্দেশে কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে বিজেএমসি কর্তৃপক্ষের কাছে বাংলাদেশ জুটমিলের চাকরি ফিরে পেতে আবেদন জানান। তার আবেদন মঞ্জুর হলে ফিরে পায় চাকরি। এদিকে মিলটির প্রায় সাড়ে ৩ হাজার শ্রমিক ও কর্মচারীদের মজুরি ১২ সপ্তাহ ধরে বন্ধ থাকায় চরম বিপদের মুখে পড়ে জাহালম সজ অন্যান্য শ্রমিকরা। দাবি আদায়ে পাটকল শ্রমিক সংগঠন রমজানের মধ্যেই মিলটির উৎপাদন বন্ধ করে দেয়। ৯৬ ঘণ্টা উৎপাদন বন্ধ থাকার পর মিলটি আবার চালু হয়।

এতে সেই আলোচিত জাহালম মজুরি পায় মাত্র তিনশো টাকা। কিন্তু অভাবের সংসারে মেয়ের আবদারের জন্য ঈদে নতুন জামা কিনে দিতে রাতের আধাঁরে রিকশা চালায় জাহালম।

জাহালম জানায়, তিন বছর দুদকের করা মামলায় ভুল আসামি হয়ে জেল থাকার কারণে এবং বকেয়া সপ্তাহ গুলোতে তার কাজ না থাকায় সে বোনাস পায়নি। রাত পোহালেই ঈদ। নিজের ছোট্ট মেয়ে চাঁদনীর নতুন জামা কিনার টাকা তার কাছে নেই। ঈদ করতে টাঙ্গাইল জেলার নিজ বাড়িতে ছুটিতে যাওয়ার কথা জাহালমের। প্রিয়জনদের নিয়ে আর আট দশটা পরিবারের মতো এবারের ঈদ উদযাপন করার মতো টাকা তার কাছে নেই। তাই দিশেহারা হয়ে পড়েছে সে। তাই বাধ্য হয়ে ঘোড়াশাল পৌর এলাকায় রাতের বেলায় রিকসা চালিয়ে যাচ্ছে তিনি।

এদিকে তাকে নিয়ে কথা হয় পলাশ উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. আশাদউল্লাহ মনার সঙ্গে। তিনি জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ জাবেদ হোসেন, ঘোড়াশাল পৌর কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম নবাব, প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি মো. আক্তারুজ্জামানসহ তিনিও কিছু আর্থিক সহযোগিতা করেছে এতে যদি তার পরিবারের কিছুটা ঈদের আনন্দ ফিরে আসে।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Enjoy this blog? Please spread the word :)