শুক্রবার | ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং |

এরশাদ কোমায়, অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ কাজ করছে না!

নিজস্ব প্রতিবেদক | বৃহস্পতিবার,০৪ জুলাই ২০১৯:
ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ (এইচএম) এরশাদের অবস্থা আরও অবনতি হয়েছে। সাবেক এই রাষ্ট্রপতি কোমায় চলে গেছেন বলে জানিয়েছেন দলটির মহসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা। বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জাতীয় পার্টির বনানী অফিসে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা নিয়ে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান তার ভাই ও পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জি এম কাদের। তিনি বলেন, ‘বিকেল ৪টা ১০ মিনিটে সিসিইউতে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। তার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হওয়ায় অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ ঠিকমতো কাজ করছে না।’ জিএম কাদের আরও বলেন, তাকে দেশের বাইরে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে ডাক্তাররা সায় দেননি। তার ফুসফুস ও কিডনির অবস্থারও অবনতি ঘটেছে। তার শ্বাস ছাড়তেও কষ্ট হচ্ছে।’

এরশাদের রোগমুক্তির জন্য তার স্ত্রী জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান এবং বিরোধীদলীয় উপনেতা বেগম রওশন এরশাদ দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করেছেন। গুজবে কান না দিতে আহ্বান জানিয়ে কাদের বলেন, ‘অনেকে গুজব ছড়ানোর চেষ্টা করছে। তাতে শুভাকাঙ্ক্ষীরা বিভ্রান্ত হচ্ছে। তাৎক্ষণিকভাবে দেশবাসীকে জানাতে আমরা সংবাদ সম্মেলন করছি। দেশবাসীকে বলছি, খবর আমরাই দেব।’

এর আগে বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটায় এরশাদপত্মী জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান এবং বিরোধীদলীয় উপনেতা বেগম রওশন এরশাদ এবং জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের আইসিইউতে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে দেখতে যান। এসময় জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিষ্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি, সুনীল শুভরায়, মেজর (অব.) খালেদ আকতার, আলমগীর সিকদার লোটন, যুগ্ম মহাসচিব এসএম ইয়াসিরসহ জাতীয় পার্টির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

৯০ বছর বয়সী সংসদীয় বিরোধী দলীয় নেতার বস্থা সংকটাপন্ন হলে গত বুধবার (২৬ জুন) সকাল ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি করা হয়। সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে ভুগছেন। কয়েক মাস ধরে হাসপাতাল ও বাসার মধ্যেই সীমাবদ্ধ হয়ে পড়ে তাঁর জীবন।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

Enjoy this blog? Please spread the word :)