শুক্রবার | ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং |

ধর্ষণের বিচার জুতাপেটা আর ক্ষমা চাওয়া!

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোমবার,৮ জুলাই ২০১৯:
চট্টগ্রামেের সীতাকুণ্ডে এক শিশুর ধর্ষককে জুতাপেটা করে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। মো. শাকিল (২৮) নামের এ যুবক ছয় বছর বয়সী এক মেয়ে শিশুকে ধর্ষণ করে।

স্থানীয় প্রভাবশালী একটি মহল সালিশের নামে উক্ত যুবককে জুতাপেটা করার পর ধর্ষণের শিকার শিশুটির মায়ের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করিয়ে ছেড়ে দেয়। ধর্ষক শাকিল সীতাকুণ্ডের কুমিরা মাস্টারপাড়া এলাকার সর্দার নুরুল আলমের ছেলে।

বিষয়টি সম্পর্কে অবগত নয় বলে জানিয়েছে সীতাকুণ্ড থানা পুলিশ।

গ্রাম্য সালিশে ধর্ষণের অভিযুক্ত শাকিলকে জুতাপেটা করছে এমন একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, ধর্ষণকারীকে এক ব্যক্তি জুতাপেটা করছেন। এসময় ধর্ষিতা শিশুটির মা’র কাছ থেকে ক্ষমা চাইতেও বলা হয়।

স্থানীয়রা জানান, গত বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) রাতে শাকিল ওই এলাকার ছয় বছর বয়সী এক মেয়ে শিশুকে ফুঁসলিয়ে ধর্ষণ করার সময় স্থানীয় লোকজন তাকে ধরে জুতাপেটা করে।

এসময় কয়েকজন লোক ধর্ষকের পক্ষ নিয়ে পরবর্তীতে বিচার হবে বলে তাকে ছেড়ে দেয়। স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিরা শনিবার (৬ জুলাই) শালিসি বৈঠক করে ধর্ষকের বাবা সমাজ সর্দার নুরুল আলমকে সর্দার পদ থেকে অব্যাহতি দেন। একইসঙ্গে আগামী তিনদিনের মধ্যে তার ছেলেকে হাজির করার নির্দেশও দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে সীতাকুণ্ডের কুমিরা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার কামাল উদ্দিন বলেন, ‘ধর্ষণের বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে শিশুটির পরিবার। ফলে আইনগত কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।’

সীতাকুণ্ড মডেল থানার ওসি (তদন্ত) শামীম শেখ বলেন, ‘শিশু ধর্ষণের বিষয়টি জানা নেই। কোনো অভিযোগও পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এদিকে এ ঘটনায় অভিযুক্ত ধর্ষণকারীকে জুতাপেটার একটি ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে ধর্ষককে আটকের জোর দাবি উঠে। যারা তাকে জুতাপেটার পর ছেড়ে দিয়েছে তাদেরও আইনের আওতায় আনার দাবি তোলা হয়।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

Enjoy this blog? Please spread the word :)