বুধবার | ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং |

বসতবাড়িতে বন্যাকবলিত বাঘ, শুয়ে আছে নরম বিছানায়

পরিবেশ ডেস্ক | বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯:
ভারতের আসামে বন্যার পানিতে হাবুডুব খাচ্ছে বিভিন্ন অঞ্চলের বাড়িঘরগুলো। ভয়াবহ বন্যায় রাজ্যের যোগাযোগ ব্যবস্থায় অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে। বন্যার পানি থেকে রেহাই পাচ্ছে না বনের পশুরাও। তাইতো প্রাণভয়ে আত্মরক্ষার্থে তারাও পালাচ্ছে যে যার মতো।

বন্যায় আসামের কাজিরাঙ্গা ন্যাশনাল পার্কটি ইতোমধ্যে ৯৫ শতাংশ ডুবে গেছে। তাইতো জীবন বাঁচাতে পার্কের বাঘ এবার আশ্রয় নিলো বসত বাড়িতে। পানিবন্দি এমনই একটি বাঘের লোকালয়ে চলে আসার ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এরইমধ্যে ভাইরাল হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) টুইটারে ওয়াইল্ডলাইফ ট্রাস্ট ইন্ডিয়ার পোস্ট করা ওই ছবিতে দেখা যায়, একটি বাঘ অনেক ক্লান্তি নিয়ে ঘরের বিছানায় শুয়ে আছে। পাশের ঘরের দেয়ালের ছিদ্র দিয়ে ওই বাঘের ছবিটি তোলা হয়।

জনপদের লোকদের মধ্যে এ নিয়ে ভীতি ছড়িয়ে পড়েছে। এরইমধ্যে বাঘটিকে অচেতন করার চেষ্টা চালাচ্ছেন বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ কর্মকর্তারা।

পার্কটির কর্মকর্তারা ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভিকে জানিয়েছেন, ওই পার্কে বিপন্ন প্রজাতির এক শিংওয়ালা গন্ডারের বাস। বন্যার কবলে চলতি সপ্তাহেই পার্কটির অন্তত ৩০টি বন্যপ্রাণীর মৃত্যু হয়েছে। অনেক প্রাণীই ভেসে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা পেতে বন ছেড়ে দ্রুত লোকালয়ের দিকে ছুটছে।

সেখানকার স্থানীয়রা জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে পার্কের অদূরেই মহাসড়কের পাশে বাঘটিকে দেখা যায়। এর পর বাঘটি কারবি হিলসের পথে মহাসড়ক ধরে এগোতে থাকে। এক পর্যায়ে পরিত্যক্ত মালপত্রের এটি গ্যারেজের দেয়াল টপকে অন্ধকার ঘরে আশ্রয় নেয় বাঘটি।

ছবিতে দেখা যায়, ওই ঘরে থাকা একটি নরম বিছানায় বাঘটি শুয়ে আছে। চোখেমুখে ভয়, ক্লান্তি আর ক্ষুধা।

প্রসঙ্গত, আসামে ভয়াবহ বন্যায় এখন পর্যন্ত লক্ষাধিক মানুষ গৃহহারা হয়েছে। প্রাণহানির সংখ্যাও বাড়ছে প্রতিদিন।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Enjoy this blog? Please spread the word :)