বুধবার | ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং |

ত্যাগের মহিমায় উৎসবে-আনন্দে সারা দেশে ঈদ উদযাপিত

ধর্ম ডেস্ক | সোমবার, ১২ই আগস্ট, ২০১৯:
ত্যাগের মহিমা ও যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনায় সারা দেশে উদযাপিত হয়েছে মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা।

সোমবার (১২ আগস্ট) বাংলাদেশে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ মহান আল্লাহ তায়ালার উদ্দেশ্যে পশু কোরবানির মধ্যে দিয়ে ঈদ উদযাপন করেছে।

একই দিন বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত, পাকিস্তান, নেপালসহ বিশ্বের নানা দেশে ঈদ উদযাপিত হয়েছে। এর আগে সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে গতকাল ১১ আগস্ট আমেরিকা ও মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ঈদুল আজহা উদযাপিত হয়েছে।

বিশ্বজুড়ে মহান আল্লাহর অপার অনুগ্রহ লাভের আশায় ঈদুল আজহার জামাত শেষে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা সামর্থ অনুযায়ী পশু কোরবানি করছেন।

এদিকে বাংলাদেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণীতে দেশবাসীসহ বিশ্বের সকল মুসলিম ভাইবোনদের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছেন।

এ বছর ডিএনসিসি ও ডিএসসিসি’র উদ্যোগে রাজধানীর ৫৮২টি স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকায় জাতীয় ঈদগাহের প্রধান জামাতসহ ঈদুল আজহার ৩১২টি এবং উত্তর সিটি করপোরেশনে’র ২৭০টি স্থানে জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এছাড়া প্রতিবারের মত এবারও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানে দেশের সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঈদের অন্যতম বৃহৎ জামাত হয়েছে দিনাজপুরের গোর-এ-শহীদ ময়দানেও।

বন্দরনগরী চট্টগ্রামে সিটি করপোরেশনের ব্যস্থাপনায় ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয় সকাল পৌনে ৮টায় নগরীর জমিয়তুল ফালাহ ময়দানে। একইস্থানে পৌনে ৯টায় হয় ঈদের দ্বিতীয় জামাত। পাশাপাশি নগরীর ৪১ ওয়ার্ডের প্রতিটিতে একটিসহ মোট ১৬৪টি জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

সিলেটের শাহী ঈদগাহ ময়দানে সকাল আটটায় হয় ঈদের প্রধান জামাত। একই সময় হযরত শাহজালাল ও হযরত শাহপরান মাজার প্রাঙ্গণে ঈদের নামাজ আদায় করেন মুসল্লীরা। কুদরত উল্লাহ মসজিদে সকাল ৮টায় প্রথম এবং সাড়ে ৮টা হয় দ্বিতীয় ঈদের জামাত।

খুলনা সার্কিট হাউজ মাঠে ঈদের প্রধান জামাত হয় সকাল ৮টায়। টাউন জামে মসজিদে নামাজ অনুষ্ঠিত হয় সকাল ৯টায়।

রাজশাহীর শাহ মখদুম কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে সকাল ৮টায় হয় প্রধান জামাত। এছাড়াও নগরীর মোট ২৫টি ঈদগাহে অনুষ্ঠিত হয় ঈদের জামাত।

বরিশালে সকাল ৮টায় ঈদের প্রধান জামাত হয় হেমায়েত উদ্দিন কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে। চরমোনাই দরবার শরীফে সকাল সাড়ে ৮টায়। পিরোজপুরের ছারছিনা দরবার শরীফে জামাত সাড়ে ৮টায়।

রংপুরে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয় জেলা কালেক্টরেট মাঠে সকাল সাড়ে ৮টায়। পুলিশ লাইন মাঠে নামাজ হয় পৌনে ৮টায়। ময়মনসিংহে ঈদের প্রধান জামাত হয় শহরের কেন্দ্রীয় আঞ্জুমান ঈদগাহ ময়দানে সকাল ৮টায়। দ্বিতীয় জামাত সকাল পৌনে ৯টায়।

খুশির এই ঈদে কোরবানি একটা বড় অনুষঙ্গ। তাই ঈদের দিন সকালে জামাত শেষে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা কোরবানি দিতেই ব্যস্ত হয়ে পড়েন। এর পর দুপুর গড়িয়ে বিকেল পর্যন্ত এমনকি কোথাও কোথাও সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে মাংস তৈরির কাজ। রাজধানী ঢাকার প্রতিটি অলিতে গলিতে প্রচুর ব্যস্ততা দেখা যায় কসাইদের মাঝে। এরমধ্যে কিছু মৌসুমী কসাইও দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে রোজগারের আশায় ঢাকায় এসেছে।

ঈদের প্রথম দিনটি কেটেছে কোরবানি ও মাংস তৈরি নিয়ে। আগামীকাল ঈদের দ্বিতীয় দিন নতুন পোশাক পরে আত্মীয় বাড়ি যাবে সব বয়সী মানুষ। অনেকেই পরিবার-পরিজন নিয়ে বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে সময় কাটাবে। যাদের সাধ্য আছে তারা যাবে দেশের বাইরে। এভাবে কাল থেকে শুরু হওয়া ঈদের ঘোরাঘুরি চলবে আগামী আরও কয়েকদিন পর্যন্ত।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Enjoy this blog? Please spread the word :)