1. shahinit.mail@gmail.com : dhaka24 :
  2. arifturag@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  3. sasujan83@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৩:৪৮ অপরাহ্ন

ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ৪৮ হাজার ছাড়াল

Reporter Name
  • প্রকাশিত | শুক্রবার, ১৬ আগস্ট, ২০১৯

নিউজ ডেস্ক | শুক্রবার, ১৬ই আগস্ট, ২০১৯:
রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৪৮ হাজার ছাড়িয়েছে। ১ জানুয়ারি থেকে ১৫ আগস্ট পর্যন্ত মোট রোগীর সংখ্যা ৪৮ হাজার ২২০। আক্রান্তদের মধ্যে চলতি মাসে সর্বাধিক ২৯ হাজার ৮১৯ জন আক্রান্ত হন। সরকারি হিসাবে মৃতের সংখ্যা ৪০ জন বলা হলেও বেসরকারি হিসাবে সংখ্যা দ্বিগুণেরও বেশি। ৭২ ঘণ্টায় ১৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। বেসরকারি হিসেবে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ৯৫ জন।

মাদারীপুরে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের একটি ওয়ার্ডের ডেঙ্গু প্রতিরোধ কমিটির সদস্য স্বাস্থ্য সহকারী তপন কুমার মণ্ডলের (৩৫) মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা তিনটার দিকে ঢাকার বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তার বাড়ি মাদারীপুরের সদর উপজেলায়। তিনি মাদারীপুর সদরে স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

গতকাল ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত এক নারী মারা গেছেন। তার নাম মৌসুমি আক্তার (২৫)। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে তিনি মারা যান। ঢামেক হাসপাতালের ক্যাম্প পুলিশ ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেন। মাগুরা সদর উপজেলার নরসিংহাটি গ্রামে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে জয়নাল শরীফ (৫২) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তিনিও গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মারা যান। বর্তমানে সারাদেশে ভর্তি রয়েছেন ৭ হাজার ৫৭০ জন। ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১ হাজার ৯২৯ জন। তাদের মধ্যে ঢাকা শহরে মোট (সরকারি, বেসরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত হাসপাতালে) ভর্তি হয়েছে ৮১১ জন। ঢাকার বাইরে বিভিন্ন বিভাগের হাসপাতালে ভর্তি ১ হাজার ১১৮ জন। রাজধানীর বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালের মধ্যে ঢাকা মেডিকেলে ১৩১ জন, মিটফোর্ডে ৬৭, ঢাকা শিশু হাসপাতালে ২৫, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ৬৬, বিএসএমএমইউতে ২১, পুলিশ হাসপাতাল রাজারবাগে ১৩, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১০৯, বিজিবি হাসপাতাল পিলখানা ঢাকায় ৫, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ২৩, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ৬৫ ও বেসরকারি অন্যান্য হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ২৮৬ জন ভর্তি হয়েছেন। বিভিন্ন বিভাগীয় শহরে মোট আক্রান্ত ১ হাজার ১১৮ জনের মধ্যে ঢাকা শহর ব্যতীত ঢাকা বিভাগে ২৯৫ জন, চট্টগ্রামে ২০৯, খুলনায় ১৫১, রংপুরে ৮১, রাজশাহীতে ১৩০, বরিশালে ১৭১, সিলেটে ২৫ ও ময়মনসিংহ বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে ৫৬ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হন। স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার অ্যান্ড কন্ট্রোল রুম সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। ঈদের ছুটিতে গ্রামে বেড়াতে গিয়েও ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে আরো ১৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। মাদারীপুরের শিবচরে হাজি আবদুল মজিদ (৭৫), ফরিদপুরে তানজিদ মোল্লা (৯) নামে এক শিশু, পাবনা সদর উপজেলার মাহফুজুর রহমান (২০), বাপেকসের প্রকৌশলী মাহবুল্লাহ হক, রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে সামিয়া নামে আট বছরের এক শিশু, কিশোরগঞ্জ শহরের বত্রিশ মনিপুরঘাটের পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সাইবার ক্রাইম ইউনিটের কনস্টেবল জামাল আহমেদ, নারায়ণগঞ্জ শহরের আমলাপাড়ার অভিজিৎ সাহা (১১) নামে শিশু, রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোববার মনিরুল ইসলাম (৩০), নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতারে আশিকুর রহমান পরশ (৪), রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আবদুল মালেক (১৯), খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজধানীর রমনা পার্কের পরিচ্ছন্নতাকর্মী রাসেল (৩২), নোয়াখালীতে আমির হোসেন (৬০), ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ফরহাদ আহমেদ (২০), রাজধানীর ধানমণ্ডির একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মেহরিমা নামে এক শিশু, কুমিল্লার হোমনা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা ফাতেমা আক্তার সোনিয়া (২৬), গাজীপুরে রিফাত হোসাইন নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয় ডেঙ্গুতে।

ডেঙ্গু প্রতিরোধে এসে প্রাণ গেল স্বাস্থ্য সহকারীর : মাদারীপুরে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে স্বাস্থ্য সহকারী তপন কুমার মণ্ডলের (৩৫) মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা তিনটার দিকে ঢাকার বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তার বাড়ি মাদারীপুরের সদর উপজেলায়। তিনি মাদারীপুর সদরে স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। মাদারীপুর সিভিল সার্জন কার্যালয় ও তপন কুমারের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর সদরে স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে কর্মরত তপনকে ১৬ দিন আগে সরকারি কাজে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৫৮ নম্বর ওয়ার্ডে ডেঙ্গু প্রতিরোধ কার্যক্রমে অংশ নিতে পাঠানো হয়। সেখানে কর্তব্যরত অবস্থায় ১১ আগস্ট তিনি ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হন। ঈদের ছুটিতে বাড়িতে এলে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে প্রথমে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে প্রথমে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরে ঢাকার বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে বুধবার থেকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) নেয়া হয় তাকে। বৃহস্পতিবার বেলা তিনটার দিকে তিনি মারা যান। মাদারীপুর সিভিল সার্জন মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, সদরের একজন স্বাস্থ্য সহকারী সরকারি দায়িত্বে ঢাকার দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের একটি ওয়ার্ডের ডেঙ্গু প্রতিরোধ কার্যক্রমে নিয়োজিত ছিলেন। সেখানে থাকা অবস্থায় তিনি ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকায় মারা যান।

আরো সংবাদ পড়ুন
© All rights reserved &copy | 2016 dhaka24.net
Theme Customized BY WooHostBD