শনিবার | ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং |

শাকিবের একাধিক ছবির প্রযোজক ক্যাসিনো ‘গুরু’ আরমান!

বিনোদন ডেস্ক | মঙ্গলবার,২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯:
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সহসভাপতি এনামুল হক আরমান এক সময় ছিলেন গুলিস্তানের হকার। ফেনীর ছাগলনাইয়া থেকে ঢাকায় এসে বায়তুল মোকাররম মার্কেটের আশপাশে লাগেজ বিক্রি করতেন তিনি। পরবর্তীতে ক্যাসিনো কারবারের বদৌলতে তিনি বনে গেছেন চলচ্চিত্র প্রযোজক।

গত এক দশকে কয়েক শত কোটি টাকা কামিয়েছেন তিনি। সম্প্রতি বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় নায়ক শাকিব খানকে কেন্দ্রীয় চরিত্রে রেখে দুটি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে আরমান লগ্নি করেছেন কয়েক কোটি টাকা।

ক্যাসিনো কারবারের ‘নিউক্লিয়াস’ হিসেবে পরিচিত মহানগর যুবলীগের দাপুটে এ নেতা ক্যাসিনো থেকে চাঁদা আদায়ের কাজটি নিজ হাতেই করতেন।

ক্লাবপাড়ার পুরনোরা আরমানকে ক্যাসিনো বাণিজ্যের গুরু বলে জানেন। মূলত তার বুদ্ধিতেই ফুটবল ক্লাবগুলোতে ক্যাসিনো কারবার শুরু হয়। শুধু তাই নয়, ক্যাসিনোসামগ্রী নিজের টাকায় কিনে এনে যুবলীগের শীর্ষনেতাদের ছত্রছায়ায় যুবলীগের প্রথম ক্যাসিনো কারবার শুরু হয়।

আরও প্রাপ্তির আশায় একসময় চলচ্চিত্র তারকাদের সঙ্গে ওঠাবসা শুরু করেন আরমান। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের শক্ত অবস্থান তৈরি করতে বেনামে সিনেমায় অর্থ লগ্নি করতে শুরু করেন। পরবর্তী সময়ে নিজেই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান খুলে জমিয়ে বসেন। ‘দেশ বাংলা মাল্টিমিডিয়া’ নামের চলচ্চিত্র প্রোডাকশন হাউসের প্রধান কর্ণধার আরমান।

গত ঈদুল আযহায় মুক্তি পাওয়া শাকিব খান ও বুবলী অভিনীত ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’ সিনেমাটির প্রযোজক আরমান। এটি আরমানের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের প্রথম ফিল্ম। এরপর শাকিব খানের বিপরীতে নবাগত জাহারা মিতুকে নিয়ে ‘আগুন’ নামের দ্বিতীয় ফিল্মের কাজও শুরু হয় আরমানের প্রযোজনায়।

আরমানের প্রথম ফিল্মের মহরত অনুষ্ঠান হয় ঢাকা ক্লাবে। দ্বিতীয় ফিল্মের মহরত হয় হোটেল সোনারগাঁওয়ে, আরও আরও জাঁকজমকপূর্ণভাবে।

ওই অনুষ্ঠানে আরমান বলেন, আমরা রাজনীতির মানুষ। দায়িত্ববোধ থেকে ছবি প্রযোজনায় এসেছি। ব্যবসায়িক লাভ নয়, লগ্নি ফেরত পেলেই আমরা খুশি। ছবিটি এখন শুটিং পর্যায়ে আছে।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

Enjoy this blog? Please spread the word :)