মঙ্গলবার | ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং |

জি কে শামীমের ছোঁয়ায় তাদের বিলাসী জীবন!

বিনোদন ডেস্ক| বুধবার,২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯:
গত শুক্রবার আটক হন রাজধানীর সবুজবাগ, বাসাবো, মতিঝিলসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রভাবশালী ঠিকাদার হিসেবে পরিচিত যুবলীগ নেতা এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীম। ক্যাসিনোতে অভিযানের পর থেকেই বার বার উঠছিলো বিভিন্ন উঠতি মডেল ও নায়িকাদের নাম, যাদের ব্যবহার করে টেন্ডার বাগাতেন তিনি।

সম্প্রতি পুলিশের হাতে আটক ক্যাসিনো মালিক ও টেন্ডারবাজ জি কে শামীম গোয়েন্দা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে টেন্ডার পেতে চলচ্চিত্রের নায়িকাদের ব্যবহারের কথা স্বীকার করেছেন। এরপর থেকেই শুরু হয় চলচ্চিত্র পাড়ায় নতুন করে আলোচনা।

এরমধ্যে এক নায়িকা রয়েছেন। যিনি অভিষেকেই শ্রেষ্ঠ নবীন শিল্পী হিসেবে পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন লাভ করেন। শামীমের সঙ্গে পরিচয়ের পর দ্রুত ভাগ্য পরিবর্তন হতে থাকে খুলনার এই মেয়ের।

শামীমের দরবারের আর্শীবাদের বদৌলতে রাতারাতি বদলে যায় তার আর্থিক অবস্থা। এই নায়িকা গুলশানে একটি ফ্যাশন হাউজ ও ধানমন্ডিতে একটি রেস্টুরেন্টের মালিক হয়েছেন। পাশাপাশি হয়েছেন প্রযোজক। ডেন্টাল কলেজের প্রাক্তন এই ছাত্রী অভিনয় ছাড়াও ভারত-বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনায় আত্মপ্রকাশ করেন প্রযোজক হিসেবে। অভিনয় করেছেন ভোজপুরি চলচ্চিত্রেও। পাঁচটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন এই নায়িকা।

যদিও গণমাধ্যমে কোনও নায়িকার নাম প্রকাশ করা হয়নি। তবে তথ্য মিলিয়ে আকার ইঙ্গিতে বার বার উঠছে নায়িকা মিষ্টি জান্নাতের নাম। সংবাদে নাম প্রকাশ না করেলেও ইঙ্গিতে যে নায়িকা মিষ্টি জান্নাতের কথাই বলা হচ্ছে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটু চোখ রাখলেই বোঝা যায়।

এ বিষয়ে মিষ্টি জান্নাতের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি মিষ্টি কখনো এসব কাজের সঙ্গে জড়িত ছিলাম না। যারা এসব রটিয়ে রেড়াচ্ছে তারা খুব খারাপ মানুষ। উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে করছে। আমি অভিযোগকারিদের বলব, আপনারা যদি ভালো মানুষ হয়ে থাকেন তাহলে দয়া করে ভিডিওসহ প্রমাণ দিন। আর যদি না দিতে পারেন তাহলে আমি তখন অ্যাকশন নেবো।’

নায়িকা মিষ্টি জান্নাতের পাশাপাশি আরও শোনা যাচ্ছে বাংলা সিনেমার অভিনেত্রী রত্না, রাহা তানহা খান ও শিরিন শীলার নামও।

এদিকে জি কে শামীমকে চেনেন না বলে জানান রাহা তানহা খান। রাহা বলেন, জি কে শামীম নামে আমি কখনো কাউকে চিনতাম না। নামই শুনিনি কোনোদিন। যদি চিনতাম তাহলে বলতে পারতাম। এখন যদি কেউ আমার নাম জড়িয়ে দেয় তাহলে আমার কিইবা করার থাকে! গণমাধ্যমে যে খবর এসেছে সেটা ভিত্তিহীন। আমি কখনো কারও অবৈধ কাজের সঙ্গে যুক্ত ছিলাম না।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

Enjoy this blog? Please spread the word :)