1. shahinit.mail@gmail.com : dhaka24 : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  2. arifturag@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  3. sasujan83@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  4. mdjihadcfm@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৯:৩০ অপরাহ্ন

লালমনিরহাটে রোগীর পেটে গজ রেখেই সেলাই করলেন ডাক্তার

ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  • প্রকাশিত | সোমবার, ৭ অক্টোবর, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোমবার ০৭ অক্টোবর ২০১৯:
লালমনিরহাটে ফারুক মিয়া নামে এক রোগীর পেটে গজ রেখে সেলাই দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। পরে রোগীকে টাকা দিয়ে ম্যানেজ করার চেষ্টা করলে বিষয়টি জানাজানি হয়। ঘটনাটি ঘটেছে লালমনিরহাটের নিরাময় ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনোসিস সেন্টারে।

ফারুক মিয়া লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের মান্নানের চৌপতি এলাকার ফজলুল হকের ছেলে।

রোগী ফারুক মিয়া ও স্থানীয়রা জানান, গত ঈদ উল আযহার দেড় সপ্তাহ পরে পেটে ব্যাথা অনুভব হলে লালমনিরহাট শহরের নিরাময় ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনোসিস সেন্টারে ভর্তি হন ফারুক। সেখানে পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে ডাক্তার জানান, অ্যাপেনডিসাইটিসের অপারেশন করতে হবে। দায়িত্বরত চিকিৎসকের পরামর্শে ডা. ভোলানাথ বর্মনের তত্ত্বাবধানে অপারেশন করেন।

কয়েক দিন পরে পুনরায় সমস্যা দেখা দেয়ায় ওই ক্লিনিকের শরণাপন্ন হলে তারা ক্ষতস্থান পরিষ্কার করে নতুন চিকিৎসাপত্র দেন। কিন্তু এতেও সুস্থ না হয়ে সমস্যা বেড়ে গেলে ফারুককে তার পরিবার রংপুর শহরের পারফেক্ট ক্লিনিকে ভর্তি করেন। সেখানে ডা. সাহেব আলী পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে জানান, পেটে কোন বস্তু রয়েছে। অপারেশন করে বের করতে হবে। সেই চিকিৎসকের পরামর্শে পুনরায় অপারেশন করে পেট থেকে গজ ব্যান্ডেজ বের করা হয়।

এ বিষয়ে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার বিষয়টি জানতে পেয়ে নিরাময় ক্লিনিকের মালিক শামছুল আলম রোগী ফারুককে ১০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দিয়ে আপোষের চেষ্টা করেন।

ক্ষতিগ্রস্ত রোগী ফারুক মিয়া বলেন, আমরা গরিব ও অর্ধশিক্ষিত মানুষ। সুস্থতার জন্য চিকিৎসকরা যা করতে বলেছেন আমরা তাই করেছি। তারা পেটের ভিতর গজ রেখে সেলাই করেছে সেটা তো আমরা জানতাম না। রংপুরে পুনরায় অপারেশন করেন গজ বের করেন ডা. সাহেব আলী। এ নিয়ে সিভিল সার্জনের কাছে অভিযোগ দিতে যাওয়ার কথা শুনে নিরাময়ের মালিক ১০ হাজার টাকা দিয়ে আপোষের চেষ্টা করেন। আমি এ অপচিকিৎসার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিব।

নিরাময় ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনোসিস সেন্টারের ব্যবস্থাপক মাসুদুর রহমান মাসুদ বলেন, ডা. ভোলানাথ বর্মন এই অপারেশন করেছিলেন। তিনি চিকিৎসকদের নেতা তার ভুল হতেই পারে না। ডা. সাহেব আলী আমাদের ক্লিনিকের সুনাম নষ্ট করতে এ অপপ্রচার করছেন। ওই রোগী রবিবার ক্লিনিকে এসেছিলেন। তবে তাকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার কোন প্রশ্নই উঠে না।

লালমনিরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কাসেম আলী বলেন, এমন খবর তার জানা নেই। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

fb-share-icon35
56

আরো সংবাদ পড়ুন




© All rights reserved &copy | 2016 dhaka24.net
Theme Customized BY WooHostBD