রবিবার | ৭ই জুন, ২০২০ ইং |

তুরাগে করোনা আতঙ্কে গৃহবন্দি শিশুরা হাপিয়ে উঠেছে ! সামান্ন বৃষ্টিতে শিশুদের স্বস্তি

রাসেল খান,
মহামারি করোনায় সারাদেশে প্রতিদিনই বাড়ছে আতঙ্ক। প্রায় এক মাস বন্ধ হয়ে আছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ শিশুদের খেলাধুলা। খাঁ খাঁ করছে মাঠ, সাধারণ ছুটির কারণে চলাফেরাতেও রয়েছে কড়া বিধি নিষেধ।
এরি মধ্যে বৃহস্পতিবার বিকেলে হটাৎ সামান্ন বৃষ্টি হওয়ায় রাজধানীর তুরাগের বিভিন্ন এলাকায় শিশুরা খেলায় মেতে উঠেছে। এসময় বাউনিয়া বটতলা, দলিপাড়া, বাদালদী এলাকার গৃহবন্দি কিছু শিশুরা বাড়ীর ছাদে এবং বাড়ির আঙ্গীনায় খেলতে দেখা যায়। এবং স্বস্তিতে বৃষ্টিতে ভিজছে দেখা যায়। প্রায় ১ ঘন্টার বৃষ্টিতে ভিজে তারা খুব আনন্দের সময় কাটাতে দেখা গেছে।
বর্তমান পরিস্থিতিতে শিশুরা চার দেয়ালে বন্দি হয়ে পরেছে। করোনা আতঙ্কে বন্ধ থাকা খেলার মাঠের সবুজ ঘাস অপেক্ষায় রয়েছে তার সঙ্গীদের। সেই সঙ্গীরা বর্তমানে ঘরে বসে হাপিয়ে পরেছে।

এরমধ্যে সাধারন ছুটি বারানো হয়েছে আরো ১০ দিন, বর্তমানে অস্থির হয়ে উঠছে শিশুরা। বাবা-মায়ের কাছে আবদার বাড়ছে বাইরে নিয়ে যাওয়ার জন্য। কিন্তু নানা কথায় ভুলিয়ে শিশুকে নিয়ে ঘরের মধ্যেই কখনও ক্রিকেট, কখনও ফুটবল খেলছেন বাবা-মায়েরা।

বাউনিয়া এলাকার এক বাসিন্দা নিলুফা আক্তার বললেন, আমার বড় ছেলের নাম জামান তুরাগের বাউনিয়া আব্দুল জলিল হাই স্কুলে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়াশুনা করেন। দীর্ঘ একমাস ঘরে বসে থেকে মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পরেছে। খাওয়া দাওয়া ও ঠিক মত করছে না। আজ বিকেলে হঠাৎ বৃষ্টি হওয়া রাস্তায় ফুটবল নিয়ে খেলতে যায় এবং বৃষ্টিতে ভিজে।

দলিপাড়া এলাকার শাহানাজ নামের এক গৃহিনী জানান, আমার একমাত্র মেয়ে রাইসা আক্তার রিস্তা উত্তরা হাই স্কুল এন্ড কলেজে ২য় শ্রেণীর ছাত্রী বর্তমান মহামারি করোনা ভাইরাস আতঙ্কে ঘরে বসে শুধু মোবাইলে গেমস্ এবং কার্টুন দেখে সময় পার করছে। শুধু বলছে কবে স্কুল খুলবে কবে স্কুলে যাবো।

fb-share-icon35
fb-share-icon20

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Enjoy this blog? Please spread the word :)