1. shahinit.mail@gmail.com : dhaka24 : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  2. arifturag@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  3. sasujan83@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  4. mdjihadcfm@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ১০:০১ পূর্বাহ্ন

মুক্তাগাছা ইউপি চেয়ারম্যান ও সচিবের বিরুদ্ধে ইউএনও বরাবর অভিযোগ

ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  • প্রকাশিত | বৃহস্পতিবার, ৩০ জুলাই, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক:
ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলা দুল্লা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হোসেন আলী হুসি ও ইউনিয়নের সচিব মেহেদী হাসানের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ থাকার পরও বহাল তবিয়তে ক্ষমতায় রয়েছেন চেয়ারম্যান এবং সচিব।
জানা যায়, দুল্লা ইউনিয়ের মোট ১২ জন ইউপি সদস্য তাদের বিরুদ্ধে দূর্নীতি, টাকা আত্মসাত সহ অসদআচরনের অভিযোগ করে লিখিত অভিযোগ করেন।
লিখিত অভিযোগের সুত্রে জানা যায়।
এলজিএসপির বরাদ্দ টাকা যথাযথো নিয়মে বাস্তবায়ন না করে তা আত্মসাৎ করেন এই দুইজন। অভিযোগে সুত্রে জানা যায়, চেয়ারম্যান তার একান্ত সচিবকে সাথে নিয়ে নিজের ইচ্ছে মত প্রকল্প দেখিয়ে কোন কাজ না করে বরাদ্দকৃত টাকা আত্মসাধ করেন। এসব অনিয়ম করে চেয়ারম্যান এবং সচিব কোটি কোটি টাকার মালিক হয়ে গেছেন ইতিমধ্যে । গতবছর চেয়ারম্যান চেচুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার তারিখ নির্ধারণ করা হলে স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক পীযূষ চন্দ্র হংসকে তার বাসায় ডেকে এনে তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে নির্বাচন পেছানোর কথা বলেন এবং জোরপূর্বক স্বাক্ষর করিয়ে নেন। সে সময় তাকে গালাগাল করে লাঞ্ছিত করা হয়। এ ঘটনার উপজেলার বেশ কয়েকটি স্কুলের প্রধান শিক্ষকরা ঘটনার সঙ্গে জড়িত চেয়ারম্যানের বিচার দাবি করে ইউএনও বরাবর স্মারকলিপি প্রধান করেন। শিক্ষক লাঞ্ছিত হওয়ার খবর আরো স্কুলে ছড়িয়ে পড়লে ওই স্কুলসহ চেচুয়া বাজারের আরও কয়েকটি স্কুলের শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা বর্জন করে রাস্তায় অবস্থান করেন। অভিযুক্ত চেয়ারম্যান এর বিরুেদ্ধ আরো অভিযোগ হলো ইউনিয়নের কাজ করা শ্রমিকদের কাজ করিয়ে ২৫% টাকা না দিয়ে সেসব টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগও রেয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। বিশস্ত সুত্রে জানা যায়, ইউনিয়নের নন.এস.এর টাকার হিসেব এখনও দেয়নি এবং মেম্বারদের পাওনা দেড় লাখ টাকা আজো দেয়নি। এসব হিসেব না দিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান ও সচিব বিভিন্ন টালবাহানা করছেন।
হোল্ডিংটেক্স,ট্রেডলাইসেন্স,বাজারখাত,নদীরঘাট থেকে আসা টাকারও কোন হোদিস পাওয়া যায়নি আজো। রিক্সা এবং ভ্যানের লাইসেন্স নাম্বার প্লেট বাবদ যে টাকা আসে তারাও কোন হিসেব কখনও পাওয়া যায়নি। এসব অপকর্ম ডাকতে চেয়ারম্যান হোসেন আলী হুসি সকল ইউপি মেম্বারদের ডেকে জোড় পূর্বক স্বাক্ষর করাতেন। যদি কেউ তার এই অপকর্মের প্রতিবাদ করে তাদের সাথে অসদচরন করতেন।
ইউপি সদস্যদের দাবী চেয়ারম্যান হোসেন আলী হুসি এবং সচিবকে আইনের আওতায় এনে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেন।

fb-share-icon35
56

আরো সংবাদ পড়ুন




© All rights reserved &copy | 2016 dhaka24.net
Theme Customized BY WooHostBD