1. shahinit.mail@gmail.com : dhaka24 : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  2. arifturag@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  3. sasujan83@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  4. mdjihadcfm@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
January 26, 2022, 11:09 am

‘রানাপ্লাজার রানা ছাড়া কেউ কারাগারে নেই, গ্রেফতারের উদ্যোগ নেই’

Reportar Name
  • Update Time | Friday, April 19, 2019,

ডেস্ক রিপোর্ট | শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯:
সাভারের রানাপ্লাজার হত্যাকাণ্ডে দায়ী ভবনের মালিক যুবলীগ নেতা সোহেল রানা ছাড়া আর কোনো আসামি কারাগারে নেই, পলাতক আসামিদের গ্রেফতারে আরও কোনো উদ্যোগও নেই বলে অভিযোগ করেছেন গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নামের একটি সংগঠন।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘রানা প্লাজা ধসের ৬ষ্ঠ বার্ষিকীর আহবান’ শীর্ষক মানববন্ধনে তারা এই দাবি জানান। মানববন্ধন থেকে ২৪ এপ্রিলকে ‘গার্মেন্টস শ্রমিক শোক দিবস’ ঘোষণা করার দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে তারা বলেন, ‘২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল রানা প্লাজা ধসে ১১৩৬ জন শ্রমিক মৃত্যুবরণ করে, নিখোঁজ হয় ৩০০ জনের অধিক এবং আহত হয় প্রায় ২৫০০ শ্রমিক। সারাকা, স্পেক্ট্রাম, কেটিএস, তাজরিন এরকম অসংখ্য শ্রমিক হত্যাকাণ্ডের ঘটনার বিচারহীনতার জন্যই রানা প্লাজা হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী, ঘটনার ৬ বছর অতিক্রম হলে এখন পর্যন্ত বিচার প্রক্রিয়া শেষ হয়নি। একমাত্র সোহেল রানা ব্যতীত আর কোনও আসামি কারাগারে নেই। অনেক আসামি পলাতক থাকলেও তাদের গ্রেফতার কোনো উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে না।’

তারা আরো বলেন, ‘তাজরিন অগ্নিকাণ্ডে, স্পেক্ট্রাম ধসের ক্ষেত্রে দায়িত্ব অবহেলার জন্য দায়ী অসাধু সরকারি কর্মকর্তা আর মুনাফালোভী মালিকদের বিচারের মুখোমুখি হতে হয়নি বলে রানা প্লাজা হত্যাকাণ্ডের পরেও ট্রেম্পাকো, মাল্টি ফ্যাবস এর মত কর্মস্থলে শ্রমিকদের জীবনহানির মিছিল থামানো যায়নি। শ্রমিক সংগঠনসমূহ দীর্ঘদিন ধরে শ্রম আইনের ক্ষতিপূরণ সংক্রান্ত ধারা সমূহ সংশোধনের দাবিতে আন্দোলন করে আসছিল। আমরা মনে করি, শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণ দিলে আর দায়ীরা শাস্তি পেলে সরকার ও মালিক সতর্ক হতো, যাতে কর্মস্থলে নিরাপত্তা নিশ্চিত হতো।’

সমাবেশ থেকে তারা বেশে কিছু দাবি জানান। দাবিগুলো হলো-

২৪ এপ্রিলকে রাষ্ট্রীয়ভাবে ‘গার্মেন্টস শ্রমিক শোক দিবস’ ঘোষণা করা; রানা প্লাজাসহ ভবন ধস, অগ্নিকাণ্ডে শ্রমিক হত্যার জন্য দায়ীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা; শ্রম আইনের ও গণতান্ত্রিক সংশোধনী বাতিল করে কর্মস্থলের মৃত্যুতে আজীবনের সমান ৪৮ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ প্রদানের বিধান করা; কর্মস্থলে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা; কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনায় আহত শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণ চিকিৎসা পুনর্বাসন ও কাজে ফেরার নিশ্চয়তা বিধান করা এবং মজুরি আন্দোলনের কারণে শ্রমিকদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও শ্রমিক ছাঁটাই নির্যাতন বন্ধ করে ছাঁটাইকৃত শ্রমিকদের কাজে ফিরিয়ে নেয়া।

মানববন্ধনে গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি আহসান হাবীব বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক, সাধারণ সম্পাদক রাজেকুজ্জামান রতন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

fb-share-icon35
56

More news
© All rights reserved &copy | 2016 dhaka24.net
Theme Customized BY WooHostBD