1. shahinit.mail@gmail.com : dhaka24 : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  2. arifturag@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  3. sasujan83@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  4. mdjihadcfm@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:১৩ পূর্বাহ্ন

ঢাকার বাতাসে বড় ‘দুঃসংবাদ’

পরিবেশ ডেস্ক:
  • প্রকাশিত | রবিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০

গোটা দেশ যখন করোনা জ্বরে কাঁপছে ঠিক এমন সময় আরও একবার ঢাকার বাতাসে ‘দুঃসংবাদ’ ভেসে এলো। লকডাউন, সীমিত পরিসরে যানচলাচল, অনেক কলকারখানা ও নির্মাণকাজ বন্ধ থাকার কারণে গত কয়েক মাসে ধারাবাহিকভাবে বিশ্বের বিভিন্ন শহরের বাতাসের মানের উন্নতি হয়েছে। সেই তালিকায় ছিল এশিয়া তথা বিশ্বের অন্যতম ঘনবসতি ও ব্যস্ততম শহর ঢাকার নামও।

কিন্তু এবার বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত শহরগুলোর মধ্যে ১৮৮ স্কোর নিয়ে ঢাকার বাতাসের মানকে ‘অস্বাস্থ্যকর’ বলে নির্দেশ করা হয়েছে। রবিবার (১৮ অক্টোবর) সকালে এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সে (একিউআই) জানিয়েছে, জনবহুল এই ঢাকার বাতাসের মান অতীতের যেকোনও সময়ের চেয়ে অনেক খারাপ। এদিন সকাল ১০টা ২৪ মিনিটে ঢাকা শহরের স্কোর ছিল ১৮৮। যা বাতাসের মানকে ‘অস্বাস্থ্যকর’ হিসেবে নির্দেশ করে।

একিউআই মান ১৫১ থেকে ২০০ এর মধ্যে থাকা মানে প্রত্যেকের স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব পড়তে পারে। আর গুরুতর অসুস্থ বা বয়স্কদের স্বাস্থ্যের ওপর মারাত্মক প্রভাব পড়তে পারে। আজ পাকিস্তানের লাহোর ও ভারতের দিল্লি যথাক্রমে ১৭৮ ও ১৭৬ স্কোর নিয়ে দূষিত শহরের তালিকায় দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে।

সাধারণত ৫১ থেকে ১০০ স্কোরের মধ্যে বাতাসের মানকে সহনীয় বা গ্রহণযোগ্য বলে নির্দেশ করা হয়।

প্রতিদিনের বাতাসের মান নিয়ে তৈরি করা একিউআই সূচক একটি নির্দিষ্ট শহরের বাতাস কতটুকু নির্মল বা দূষিত সে সম্পর্কে মানুষকে তথ্য দেয় এবং তাদের জন্য কোনও ধরনের স্বাস্থ্য ঝুঁকি তৈরি হতে পারে তা জানায়।

একিউআই স্কোর ১০১ থেকে ১৫০ হলে সাধারণ নগরবাসী বিশেষ করে শিশু, বয়স্ক ও অসুস্থ রোগীরা চরম স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়ার আশঙ্কা থাকে। কিন্তু একিউআই স্কোর ১৫১ থেকে ২০০ হলে শহরের বাতাসকে দূষিত ও অস্বাস্থ্যকর বলে চিহ্নিত করা হয়।

আর একিউআই স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে স্বাস্থ্য সতর্কতাসহ জরুরি অবস্থা হিসেবে বিবেচিত হয়। স্কোর ৩০১ থেকে ৫০০ হলে বাতাসের মান সবচেয়ে খারাপ বলে ধরে নেয়া হয়।

সাধারণত ধুলোবালি বায়ুদূষণের অন্যতম কারণ। এছাড়াও অপরিকল্পিত-অনিয়ন্ত্রিত নির্মাণকাজ, মেয়াদোত্তীর্ণ মোটরযান ও শিল্পকারখানা থেকে নির্গত বিষাক্ত ভারি ধাতু ধুলোর সঙ্গে যুক্ত হওয়া। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা যায়, ঢাকার বাতাসে পাওয়া ধুলোয় সিসা, ক্যাডমিয়াম, দস্তা, ক্রোমিয়াম, নিকেল, আর্সেনিক, ম্যাঙ্গানিজ ও কপারের সর্বোচ্চ মাত্রায় উপস্থিতি পাওয়া যায়। এসব ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র বস্তুকণা খুব সহজেই মানুষের ত্বকের সংস্পর্শে আসছে।

fb-share-icon35
56

আরো সংবাদ পড়ুন




© All rights reserved &copy | 2016 dhaka24.net
Theme Customized BY WooHostBD