1. shahinit.mail@gmail.com : dhaka24 : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  2. arifturag@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  3. sasujan83@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  4. mdjihadcfm@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ১১:২১ পূর্বাহ্ন

মুজিববর্ষে দ্বিতীয় দফায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার, নতুন ঠিকানায় গৃহহীনরা

ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  • প্রকাশিত | সোমবার, ২১ জুন, ২০২১

মুজিববর্ষ উপলক্ষে দ্বিতীয় দফায় সারা দেশে ৫৩ হাজার ৩৪০ পরিবারকে দুই শতাংশ জমির মালিকানাসহ সেমিপাকা ঘর উপহার দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল রোববার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৪৫৯টি উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীন এসব মানুষের হাতে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন তিনি। নতুন ঘর পেয়ে খুশি ভূমিহীনরা। বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে।

মুন্সীগঞ্জ: জেলায় ৩২৫টি ভূমিহীন পরিবারকে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্ত করেন মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য মৃণাল কান্তি দাস, জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) দীপক কুমার রায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মিনহাজ আবেদীন। এর আগে প্রথম দফায় জেলায় ৫০৮টি গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবারের মাঝে জমির দলিল ও ঘর প্রদান করা হয়েছে।

মধুখালী (ফরিদপুর): মধুখালীতে ৪০টি পরিবার পেয়েছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার। বিশেষ অতিথি হিসেবে জমির দলিল হস্তান্তর করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (আটিসি ও শিক্ষা) সাইফুল কবির। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোস্তফা মনোয়ার মনোয়ার, মধুখালী থানার ওসি শহিদুল ইসলাম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ মুরাদুজ্জামান মুরাদ, মোর্শেদা আক্তার মিনা, পৌর মেয়র খন্দকার মোরশেদ রহমান লিমন প্রমুখ।

মান্দা (নওগাঁ): মান্দায় প্রধানমন্ত্রীর ঘর উপহার পেয়েছে ২১ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল হালিম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুবা সিদ্দিকা রুমা, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইমরানুল হক, মুক্তিযোদ্ধা খোদা বকস মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা আফছার আলী ম-ল, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা অভিমান্য চন্দ্র, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা এসএম ফজলুর রহমান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রেজাউল করিম প্রমুখ।

পত্নীতলা (নওগাঁ): পত্নীতলায় ঘর পেয়েছে ১১৭টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিটন সরকার, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল গাফ্ফার, সহাকারী কমিশনার (ভূমি) সানজিদা সুলতানা, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আহাদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাতিজাতুল কোবরা মুক্তা, পত্নীতলা থানার ওসি শামসুল আলম শাহ্ প্রমুখ।

মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী): মির্জাগঞ্জে ২২৫ ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমিসহ পাকা ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসা. তানিয়া ফেরদৌসের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপকারভোগীদের মাঝে কবুলিয়তনামা হস্তান্তর করেন জেলা প্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরী।

মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট): মোরেরগঞ্জে ২৫টি পরিবারকে জমিসহ ঘর প্রদান করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন উপকারভোগীর মাঝে দুই শতক জমির কবুলিয়াত দলিল, নামজারি, ঘরের চাবি এবং প্রধানমন্ত্রী ও উপহার সনদ তুলে দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক মোজাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাহিমা ছাবুল, বনগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রিপন চন্দ্র দাস।

নাগরপুর (টাঙ্গাইল): নাগরপুরে মুজিববর্ষ উপলক্ষে দ্বিতীয় ধাপে ঘর পেয়েছে ৫০টি গৃহহীন পরিবার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিফাত-ই-জাহান, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তারিন মসরুর, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবীর, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবু বক্কর সিদ্দিকী, উপজেলা প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান প্রমুখ।

নাইক্ষ্যংছড়ি (বান্দরবান): নাইক্ষ্যংছড়িতে গৃহহীন ২৫ পরিবারের মাঝে ঘরের চাবি ও সনদ হস্তান্তর করা হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিন কচি, উপজেলা চেয়ারম্যান শফিউল্লাহ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামীমা আক্তার প্রমুখ।

নওগাঁ: জেলায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ৫০২টি গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবার বাড়ি পেয়েছে। জেলা প্রশাসক মো. হারুন-অর-রশিদ জানিয়েছেন, প্রত্যেককে দুই শতাংশ করে খাস জমি বন্দোবস্তপূর্বক গৃহ প্রদান করা হয়েছে। গৃহ নির্মাণ সম্পন্ন হওয়ার পর সকল উপজেলায় এসব গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবারের অনুকুলে কবুলিয়ত ও নামজারি সম্পন্ন হয়েছে।

রানীনগর (নওগাঁ): দ্বিতীয় পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রীর উপহার জমি ও গৃহ পেয়েছেন ৩৩টি পরিবার। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এসব পরিবারের মাঝে ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়।

নড়াইল: জেলায় ৪৭৭টি ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। এর মধ্যে প্রথম পর্যায়ে ৩২৫টি এবং দ্বিতীয় পর্যায়ে গতকাল রোববার ১৫২টি ঘর হস্থান্তর করা হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার প্রবীর কুমার রায়, অতিরক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব ) দেবাশীষ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া ইসলাম, সহকারী কশিনার (ভূমি) কৃষ্ণা রায়, সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ইসমত আরা, জেলা পরিষদের সদস্য সাইফুর রহমান হিলু, নড়াইল প্রেস ক্লাবের সভাপতি এনামূল কবীর টুকু প্রমুখ।

নাটোর: দ্বিতীয় পর্যায়ে ১৩৮১টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক মো. শাহরিয়াজ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে রেজিস্ট্রি দলিল প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে হস্তান্তর করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা, পৌর মেয়র উমা চৌধুরী জলি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম রমজান প্রমুখ।

বন্দর (নারায়ণগঞ্জ): উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে ১৫টি পরিবারের মাঝে ঘর হস্তান্তর করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে জেলা প্রশাসক মো. মোস্তাইন বিল্লাহ ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকার দলিলসহ ঘরের চাবি প্রদান করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. সেলিম রেজা, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসমা সুলতানা, বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিপক চন্দ্র শাহা, বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ রসিদ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ সানু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সালিমা হোসেন শান্তা প্রমুখ।

কাউনিয়া (রংপুর): কাউনিয়ায় দ্বিতীয় পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রীর উপহার গৃহ ও জমি পেয়েছে ৪০০ পরিবার। প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর অধীনে প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে উপজেলার ৫২০টি পরিবারকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। সুবিধাভোগী ৫২০টি পরিবারের মধ্যে প্রথম পর্যায়ে ১২০টি গৃহ ও জমির দলিল হস্তান্তর করা হয়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে ৪০০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে আশ্রয় দিতে গৃহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

নন্দীগ্রাম (বগুড়া): নন্দীগ্রামে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় আরও ৮০টি গৃহহীন পরিবার জমি ও বাসগৃহ পেয়েছে। উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমি ও বাসগৃহের চাবি হস্তান্তর করা হয়। এ উপলক্ষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিফা নুসরাতের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সাপাহার (নওগাঁ): উপজেলায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ৬০টি পরিবারকে ঘর দেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ঘর ও জমির দলিল হস্তান্তর করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মিল্টন চন্দ্র রায়, উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্যাহ আল মামুন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সোহরাব হোসেন।

সারিয়াকান্দি (বগুড়া): সারিয়াকান্দিতে প্রধানমন্ত্রীর ঘর উপহার পেয়েছে ৫১টি পরিবার। প্রধান অতিথি হিসেবে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্তর করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মাসুম আলী বেগ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাসেল মিয়া, সারিয়াকান্দি থানার ওসি মিজানুর রহমান, সহকারী কমশিনার (ভূমি) দেওয়ান একরামুল হক, পৌর মেয়র মতিউর রহমান মতি, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী তরফদার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহীনুর বেগম প্রমুখ।

নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর): নবাবগঞ্জে ৪৫০টি ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান ভূমিহীনদের হাতে জমির দলিল ও চাবি তুলে দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আল-মামুন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রাজ্জাক, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছা. পারুল বেগম প্রমুখ।

মুকসুদপুর (গোপালগঞ্জ): মুকসুদপুরে ১৫০টি পরিবার জমিসহ ঘর পেয়েছে। উপজেলা প্রশাসন সুবিধাভোগীদের মাঝে দলিল ও চাবি হস্তান্তর করে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক শফিকুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোবায়ের রহমান রাশেদ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসমত হোসেন ভূঁইয়া, মুকসুদপুর থানার ওসি আবু বকর মিয়া, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হাচেন উদ্দীন প্রমুখ।

নিয়ামতপুর (নওগাঁ): নিয়ামতপুরে ভূমিহীন ও গৃহহীন ৭৫টি পরিবার পেয়েছে ঘর। নতুন ঘর ও জমি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাদ্যমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র মজুমদার। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়া মারীয়া পেরেরার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফরিদ আহম্মেদ।

নীলফামারী: এক হাজার ১০টি পরিবারের মাঝে ঘরের চাবি ও সনদপত্র হস্তান্তর করা হয়েছে। সদর উপজেলার খোকশাবাড়ি ইউনিয়নের রামকলা গ্রামে জেলা পর্যায়ে আনুষ্ঠানিকতার আয়োজন করে নীলফামারী সদর উপজেলা প্রশাসন। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী। এতে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) লিজা বেগম, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাহিদ মাহমুদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সান্তনা চক্রবর্তী প্রমুখ।

নোয়াখালী: দ্বিতীয় পর্যায়ে নোয়াখালীতে ৮৩৫টি পরিবারের মাঝে জমির দলিলসহ ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালী-১ আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহীম, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান, পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন ও প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারি জাহাঙ্গীর আলম।

পার্বতীপুর (দিনাজপুর): দিনাজপুরের পার্বতীপুরে দ্বিতীয় পর্যায়ে ভূমিহীন-গৃহহীন আরও ১০০ পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা পরিষদ হলরুমে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুল ইসলাম প্রামাণিক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাশিদ কায়সার রিয়াদ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আমিরুল মোমেনিন মোমিন, দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর ডিজিএম এহতেসামুল হক প্রমুখ।

পাটগ্রাম (লালমনিরহাট): উপজেলায়ও ৬৫টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান করা হয়েছে। শহীদ আফজাল মিলনায়তনে অনলাইন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অংশ নেন পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (সাইফুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পূর্ণ চন্দ্র রায়, পাটগ্রাম পৌর মেয়র রাশেদুল ইসলাম সুইট, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন লিপু, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রুবেল রানা, পাটগ্রাম মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান নিলু প্রমুখ।

পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও): ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে ৪৮০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমির দলিল ও গৃহ প্রদান করা হয়েছে। উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে গৃহহীনদের মাঝে ঘর ও জমির দলিল বুঝে দেন ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের এমপি জাহিদুর রহমান জাহিদ, সাবেক এমপি ইমদাদুল হক, এডিসি জেনারেল রাম কৃষ্ণ বর্মন, উপজেলা চেয়ারম্যান আক্তারুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম, পৌর মেয়র ইকরামুল হক প্রমুখ।

হোমনা (কুমিল্লা): হোমনায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ২৬টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার পেয়েছে প্রধানমন্ত্রীর গৃহ উপহার। উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ২৬টি পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার দুই কক্ষবিশিষ্ট একটি গৃহের সনদপত্র ও পর্চা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রদান করা হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুমন দের সভাপতিত্বে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন হোমনা-তিতাস আসনের সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরী, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রেহানা বেগম, ভাইস চেয়ারম্যান মহাসিন সরকার, পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা আক্তার রীনা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) তানিয়া ভূঁইয়া প্রমুখ।

গলাচিপা (পটুয়াখালী): গলাচিপায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ৫০০ ভূমিহীন ও গৃহহীনের মাঝে ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়। অনুষ্ঠানে গলাচিপা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশিষ কুমারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পটুয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য এস এম শাহজাদা।

ডিমলা (নীলফামারী): নীলফামারীর ডিমলায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে জমি ও গৃহ পেয়েছে ২০০টি ভূমিহীন পরিবার। উপজেলার সদর ইউনিয়নে ১০টি, বালাপাড়া ইউনিয়নে ৬৪টি, ঝুনাগাছ চাপানী ইউনিয়নে ৫০টি ও খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়নে ৭৬টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মধ্যে জমি ও গৃহ হস্তান্তরের উদ্বোধন করেন ডিমলা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা তবিবুল ইসলাম।

রাজশাহী: দ্বিতীয় ধাপে ঘর পেয়েছে রাজশাহীর ৮৫৪টি গৃহহীন পরিবার। এতে ব্যয় হয়েছে ১৬ কোটি ২২ লাখ ৬০ হাজার টাকা। জেলা প্রশাসক জানান, রাজশাহীর নয়টি উপজেলায় ৮৫৪টি পরিবারের উপজেলায় ঘর প্রস্তুত করা হয়েছে। গোদাগাড়ী উপজেলায় ৪০৩টি, তানোরে ১০৫টি, মোহনপুরে ৫০টি, বাগমারায় ৭৭টি, দুর্গাপুরে ১৪টি, পুঠিয়ায় ১১০টি, চারঘাটে ১০টি, বাঘায় ৩৫টি এবং পবায় ৫০টি পরিবার ঘর পেয়েছে।

সাঘাটা (গাইবান্ধা): সাঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভূমিহীন ও গৃহহীন ৪০ পরিবারকে জমি ও গৃহের দলিল হস্তান্তর করেন। এ উপলক্ষে উপজেলা পরিষদ হলরুমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) তুহিন হোসেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বিপ্লব, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নাজমুল হুদা দুদু, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিঠুন কুণ্ডু, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি হারুন-অর-রশিদ হিরু প্রমুখ। ভূমিহীন ও গৃহহীন প্রকল্পের আওতায় সাঘাটা উপজেলায় ৮০টি ঘর বরাদ্দ হয়। এর মধ্যে ৪০টি জমি ও গৃহের দলিল হস্তান্তর করা হয়েছে। বাকি ৪০টি ঘরের কাজ শেষ হলে হস্তান্তর করা হবে।

সাভার: সাভারে আরও ৫১টি ভূমি ও গৃহহীন পরিবারকে ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান। দ্বিতীয় ধাপে আশুলিয়ার শিমুলিয়া ইউনিয়নের গোহাইলবাড়ি এলাকায় ৪৮ শতাংশ জমির ওপর নির্মাণ করা হয়েছে ২৪টি ঘর। অন্যদিকে আশুলিয়ার কাঁঠগড়ার বড়রাঙ্গামাটিয়া এলাকায় ৫৪ শতাংশ জমিতে ২৭টি পরিবারের জন্য ঘর নির্মাণ করা হয়েছে।

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ): সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় ৭০টি পরিবার ঘর পেয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেজবাউল করিমের সভাপতিত্বে জমির দলিল এবং ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মনিরুজ্জামান, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. ওবায়দুল্লাহ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন খান, তালম ইউপি চেয়ারম্যান আব্বাস-উজ-জামান, বারুহাস ইউপি চেয়ারম্যান মোক্তার হোসেন মুক্তা প্রমুখ।

ঠাকুরগাঁও: দ্বিতীয় ধাপে ঠাকুরগাঁওয়ে আরও এক হাজার ৮০৫টি গৃহহীন পরিবারকে দুই শতক জমির মালিকানাসহ সেমিপাকা ঘর উপহার দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ উপলক্ষে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা হলরুমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান অরুণাংশু দত্ত টিটো, পৌর মেয়র আঞ্জুমান আরা বন্যা প্রমুখ।

ত্রিশাল (ময়মনসিংহ): ত্রিশালে ভূমিহীন ৪০ পরিবারের মাঝে জমির কাগজপত্র ও নতুন ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর ঘরের চাবি হস্তান্তর করেন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন মাদানী এমপি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র ফজলে রাব্বি, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক নবী নেওয়াজ সরকার প্রমুখ।

ভৈরব (কিশোরগঞ্জ): ভৈরব উপজেলার পাঁচটি পরিবারের মধ্যে জমির কাগজপত্র ও গৃহের চাবি প্রদান করা হয়েছে। উপজেলা চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. সায়দুল্লাহ মিয়া, পৌর মেয়র ইফতেখার হোসেন বনু, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিমাদ্রী খীসা, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মনোয়ারা বেগম, প্রকল্প কর্মকর্তা আলী মো. রাশেদ, গজারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম সারোয়ার গোলাপ উপস্থিত থেকে গৃহহীনদের হাতে জমির কাগজপত্রসহ গৃহের চাবি তুলে দেন।

উখিয়া (কক্সবাজার): উখিয়া উপজেলায় ৪৫৯টি পরিবারের মাঝে ঘরের চাবি তুলে দেওয়া হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন আহমদের উপস্থিতিতে ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার কক্সবাজারের উপ-পরিচালক (উপ-সচিব) শ্রাবস্তী রায়, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, কামরুন্নেছা বেবি, উখিয়া থানার ওসি আহাম্মদ সনজুর মোরশেদ, উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, রতপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খাইরুল আলম চৌধুরী, হলদিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ আলম প্রমুখ।

কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী): নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলায় গৃহহীনদের মাঝে জমির দলিলসহ ঘরের চাবি তুলে দেওয়া হয়েছে। ঘরের চাবি হস্তাতরের সময় উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহ মো. আবুল কালাম বারি পাইলট, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আজহারুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রোকসানা বেগম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) রাকিবুজ্জামান রাকিব, কিশোরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল আউয়াল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাকির হোসেন বাবুল, সাধারণ সম্পাদক মশিয়ার রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান হাবুল, এমপির প্রতিনিধি রেজাউল আলম স্বপন প্রমুখ।

জলঢাকা (নীলফামারী): জলঢাকায় ভূমিহীনদের জন্য সরকারি আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর অধীনে ৩০০টি ঘর দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে মীরগঞ্জ ইউনিয়নে ১৩০টি, শিমুলবাড়িতে ৭০টি এবং কৈমারী ইউনিয়নে ১০০টি ঘর রয়েছে। এর আগে উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে প্রথম দফায় ১৪১টি ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

আদিতমারী (লালমনিরহাট): আদিতমারী উপজেলায় ১৫০টি পরিবারের মাঝে ঘরের জমিসহ দলিল হাতে তুলে দেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মুহাঃ রাশেদুল হক। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ মনসুর উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান ফারুক ইমরুল কায়েস।

বরগুনা: বরগুনার ১৭৯ পরিবার পেয়েছে প্রধানমন্ত্রীর ঘর। বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু ঘরের চাবি ও দলিলপত্র হস্তান্তর করেন। বরগুনা সদর উপজেলা পরিষদ আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বরগুনা জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মনিরুল ইসলাম ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আবদুর রশিদ মিয়া।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারের ঘর পেয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের এক হাজার ৭০টি পরিবার। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে উপকারভোগীদের মাঝে জমির দলিল হস্তান্তর করেন জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ।
দেবীগঞ্জ (পঞ্চগড়) : দেবীগঞ্জে ৫৬টি ঘরের কাগজ তুলে দেন উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক চিসতী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বাবুল হোসেন সরকার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আব্দুল মমিন, সাংবাদিক জাকির হোসেন, রাহাত হাসান রনি প্রমুখ।

ফরিদপুর: ফরিদপুরে এক হাজার ৫৭২টি পরিবারকে নতুন ঘর দেওয়া হয়েছে। সদর উপজেলা পরিষদের হলরুমে এ উপলক্ষে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক অতুল সরকার, পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামান, এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী কে এম ফারুক হোসেন, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) মো. আবুল হাসান, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. মনিরুল ইসলাম, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা, মুক্তিযোদ্ধা আবুল ফয়েজ শাহনেওয়াজ প্রমুখ।

গঙ্গাচড়া (রংপুর): গঙ্গাচড়ায় জমিসহ ১০০টি বাড়ি হস্তান্তর করা হয়েছে। উপকারভোগীদের হাতে জমির দলিলসহ ঘরের চাবি হস্তান্তর করে উপজেলা প্রশাসন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন রংপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ, উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাসলীমা বেগম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) শরীফুল আলম, ভাইস চেয়ারম্যান সাজু আহমেদ লাল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রাবিয়া বেগম, গঙ্গাচড়া মডেল থানার ওসি সুশান্ত কুমার সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম প্রমুখ।

গোপালগঞ্জ: জেলায় ৮০৭টি ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমি ও ঘর প্রদান করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে উপজেলা প্রশাসন ৫৫৫টি ঘর হস্তান্তর করে। বাকি ঘরগুলো পর্যায়ক্রমে হস্তান্তর করা হবে।

যশোর: মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রম দ্বিতীয় পর্যায়ের উদ্বোধন উপলক্ষে যশোরে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সদর উপজেলা পরিষদ কনফারেন্স রুমে এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) আনোয়ার হোসেন বিপুল। এ সময় জেলা প্রশাসক ১০০ ভূমিহীনের হাতে ঘরের চাবি ও জমির দলিল তুলে দেন। এছাড়া প্রথম পর্যায়ে জেলার আরও এক হাজার ৭৩ পরিবার ঘর ও জমি পেয়েছেন।

কুড়িগ্রাম: জেলায় জমিসহ ঘর পেয়েছে এক হাজার ৭০টি পরিবার। সদর উপজেলার পাঁছগাছী ইউনিয়নের নওদাবস এলাকায় এসব ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের হাতে ঘরের দলিল ও চাবি তুলে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন, কুড়িগ্রাম-৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক এমএ মতিন, কুড়িগ্রাম-১ আসনের সংসদ সদস্য আসলাম সওদাগর, রংপুর বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল ওয়াব ভূঁইয়া, রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জাফর আলী, সাধারণ সম্পাদক আমান উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিলুফা ইয়াসমিন প্রমুখ।

মাগুরা: চারটি উপজেলায় উপকারভোগীদের মাঝে ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়। মাগুরা সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ঘর হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর, জেলা প্রশাসক ড. আশরাফুল আলম, পুলিশ সুপার জহিরুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডাক্তার শহীদুল্লাহ দেওয়ান, পৌর মেয়র খুরশীদ হায়দার টুটুল, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নাসির বাবলু প্রমুখ।

fb-share-icon35
56

আরো সংবাদ পড়ুন




© All rights reserved &copy | 2016 dhaka24.net
Theme Customized BY WooHostBD