1. shahinit.mail@gmail.com : dhaka24 : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  2. arifturag@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  3. sasujan83@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  4. mdjihadcfm@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
এফ সি এইচ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা কানিজ ফাতেমা মানবতার সেবিকা - Dhaka 24 | Most Popular Bangla News | Breaking News | Sports
May 20, 2022, 4:39 am

এফ সি এইচ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা কানিজ ফাতেমা মানবতার সেবিকা

নাসরিন পারভীন
  • Update Time | Monday, June 28, 2021,

মানবতার সেবিকা হিসেবে পরিচিত লাভ করেন মৌলভীবাজারের কানিজ ফাতেমা। বর্তমান সময়ের তরুণ সমাজ কর্মী এবং আর্তমানবতার এক মহান সেবিকা হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছেন তিনি।

মানুষ মানুষের জন্য, জিবন জিবনের জন্য এই শ্লোগানকে সামনে রেখে তিনি মানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি বলেন ভালোবেসেই করা যায় অসাধ্যকে সাধন ইচ্ছে শক্তি থাকলেই পৌছানো যায় আর্তমানবতার শিখরে, ঠিক তেমনটিই করে দেখিয়েছেন, ।

কানিজ ফাতেমা বলেন ২০১৫ সালে প্রথম অসহায় মানুষদের মাঝে খাবার বিতরণ করি, এবং রমজান মাসে রমজানের বাজার সহ শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন করি এবং অসহায় মানুষদের মাঝে ঈদের জামা বিতরন করি সহ চিকিৎসার খরচ বহন করি এবং অসুস্থ রোগীদের জন্য ব্লাড ম্যানেজড করে দেই। আমি নিজেও ব্লাড ডোনেশন করি।

কানিজ ফাতেমা বলেন, ২০২০ এর ডিসেম্বরের ৩১তারিখ আমি হতদরিদ্র পথশিশু মানুষদের মাঝে খাবার বিতরন করি এবং খাবার দেয়ার ছবি আমার নিজের ফেসবুকে পোস্ট করি। এতে আমি ব্যাপক সাড়া পেয়েছি। তারপর আমি আমার হাজবেন্ডের সাথে বিষয়টি শেয়ার করি। তখন আমি আর আমার হাজব্যান্ড বিষয়টি নিয়ে চিন্তা করলাম কিভাবে কি করা যায়। তখন আমরা চিন্তা করলাম আমরা সাধারণত যখন রেস্টুরেন্টে খেতে যাই বা বিয়ে বাড়িতে যাই বা কোন পার্টিতে যাই তখন তাদের অনেক খাবার থেকে যায় ঐসব অবশিষ্ট খাবার গুলো যদি আমরা নিতে পারি তাহলে আমরা অনেক গুলো অসহায়দের খাওয়াতে পারবো।
আমার হাসবেন্ড বললেন যে করোণা কালীন অনেক অসহায় মানুষ খুদার জ্বালায় ভুগছে আমরা যদি এই কাজটা করি তাহলে অনেক ভালো হয় তারপর আমি একটা নাম সিলেক্ট করলাম FcH-Food Collection for Helpless,
পরে বিষয়টি নিয়ে আবার ফেসবুকে পোস্ট করলাম ভলেন্টিয়ার হিসাবে কাজ করলে নক দিবেন তখন আমার ছোট দুই বোন সহ আমরা মোট ৬ জন ভলেন্টিয়ার নিয়ে আমাদের মৌলভীবাজারের সিনিয়র সমাজকর্মীরা তাদের সাথে আমি একটা মিটিং করলাম মিটিং করার পর তাদের কাছ থেকে আইডিয়া নিলাম যে কাজগুলো আমি কীভাবে কীভাবে করবো, আমি তাদের প্লেন অনুযায়ী কাজ শুরু করলাম তারপর আমরা ৬ জন আবার একটা মিটিং করলাম যে আমরা কোথায় কিভাবে কাজ করব আমি ঠিক করলাম যে মৌলভী বাজার প্রত্যেক রেস্টুরেন্টে পেইজে নক করব ।
তাদেরকে বললাম যে আপনাদের বিক্রির পরে যে খাবারগুলো পার্সেল করার মত সেই খাবারগুলো কি করেন ? তখন তারা বলেন যে আমরা খাবারগুলো ফেলে দেই তখন আমি উনাদেরকে আমার এফসিএইচ সংগঠনের সম্পর্কে বললাম। তারা রাজি হলেন আমাদের কে দিতে।
২০২১জানুয়ারি ২০তারিখে একটা রেস্টুরেন্টে থেকে প্রথম আমাদের সংগঠনকে খাবার দেয় সেই খাবার মৌলভীবাজারের চোমুনা পয়েন্টে ও পৌর পার্কের সামনে অসহায় মানুষদের হাতে তুলে দিয়েছিলাম। সেই ছবিগুলো আবার ফেসবুকে পোস্ট করি তারপর থেকে আমাদের ভলেন্টিয়ার বাড়তে থাকে বর্তমানে আমাদের ভলেন্টিয়ারের সংখ্যা ৪৫জন। সবাই কাজ করছে আর আমরা এখন প্রতিনিয়তই খাবার বিতরণ করি শুধু রেস্টুরেন্ট থেকে না বিয়ে বাড়ি থেকে ,বার্থডে পার্টি থেকে
আবার বাসায় রান্না করে আমাদের সংগঠনের পেইজে নক করেন আমরা সেই খাবারগুলো অসহায় মানুষের হাতে পৌঁছে দেই। তাছাড়া এখন আমাদেরকে বিভিন্ন জায়গা থেকে বিভিন্ন দেশ থেকে আমাদেরকে এ ডোনেশন করা হচ্ছে সেই ডোনেশনের থেকে আমরা নিজে খাবার আয়োজন করে অসহায় মানুষের মাঝে বিতরণ করি তার পাশাপাশি ডোনেশনের টাকা থেকে আমরা কিছু অসহায় মানুষদের ঘর তৈরির জন্য টিন বিতরণ করেছি। এবং ২ জন অসহায় বোনের বিয়েতে আমরা কিছু আসবাবপত্র দিয়েছি নগদ টাকাও দিয়েছি ।আমরা শুধু মৌলভীবাজারে কাজ করছি না মৌলভীবাজার আশেপাশে যে গ্রামগুলো সেই গ্রামগুলোতে সাহায্য করছি।

নারায়ণগঞ্জে ২০২১ এপ্রিলের ২২তারিখে এফ সি এইচ এর উদ্যোগে কিছু অসহায় মানুষের হাতে খাবার তুলে দিয়েছে । অপচয় রোধ করার জন্য আমার এই উদ্যোগটা ছিল আমি চেষ্টা করছি যে মানবতা কাজটা প্রতিনিয়ত চালিয়ে যাওয়ার জন্য। ইনশাআল্লাহ আগামীতে এভাবেই কাজ করে যাব।

More news
© All rights reserved &copy | 2016 dhaka24.net
Theme Customized BY WooHostBD