1. shahinit.mail@gmail.com : dhaka24 : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
  2. arifturag@gmail.com : ঢাকা টোয়েন্টিফোর : ঢাকা টোয়েন্টিফোর
দুবাই থেকে টাকা আসছে, ফখরুল এখন চাঙ্গা - Dhaka 24 | Most Popular News | Breaking News | English | Bangla
November 26, 2022, 10:14 am

দুবাই থেকে টাকা আসছে, ফখরুল এখন চাঙ্গা

ডেস্ক রিপোর্ট-
  • Update Time | Saturday, October 29, 2022,

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর টাকার বস্তার ওপর শুয়ে আছেন বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ফখরুল এখন চাঙ্গা হয়ে গেছেন। টাকা পাচ্ছেন তো। দুবাই থেকে টাকা আসছে। আমরা খবর নিচ্ছি। কারা পাঠায়। খোঁজ পেয়েছি। ব্যবস্থা হবে।

আজ শনিবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে পুরাতন বাণিজ্যমেলার মাঠে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে কাদের এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুলকে উদ্দেশ্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ফখরুলের খবর কী? ফখরুল শুয়ে আছেন টাকার বস্তার ওপর। টাকা রে টাকা! দুবাইয়ের টাকা। এই তো এলো টাকা। ফখরুল মহাখুশি। টাকা পাইলেই বিএনপি খুশি। টাকার বস্তা বিছানার ওপর দিয়ে ফখরুল শুয়ে আছেন। টাকা উড়ে আকাশে, বাতাসে। টাকা উড়ে পাড়ায়-মহল্লায়। টাকার খেলা হবে না। খেলা হবে জনগণের।’

রংপুরে বিএনপির সমাবেশের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘রংপুরে একটি সমাবেশ হচ্ছে। আপনারা কেউ জানেন? কত রঙ্গ দেখাইলারে জাদু, কত রঙ্গ দেখাইলা! রংপুরে রঙ্গের নাটক। তিন দিন আগে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে রংপুরে এনে সব শোয়াইয়া রাখছে। মঞ্চের সামনে শুয়ে আছে। মঞ্চের ওপরে শুয়ে আছে। বাড়ির ছাদের ওপর, গুদাম ঘরে শুয়ে আছে।’

চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন এলাকায় বিএনপির সমাবেশে লাখ লাখ নেতাকর্মী উপস্থিত ছিল বলে দলটির নেতাদের দাবির সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘রংপুরে কত কইবেন? ৫০/৬০ হাজার? আওয়ামী লীগের ঢাকা জেলার সম্মেলনে কত লোক হয়েছে খবর নেন।’

মির্জা ফখরুলকে টেলিভিশনে আওয়ামী লীগের সম্মেলন দেখার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘রংপুরের ছবিও দেখুন। আপনারটাও দেখুন। আমাদেরটাও দেখুন। এখানে তো (প্রধানমন্ত্রী) শেখ হাসিনা নেই। দেখাবো, (চট্টগ্রামের) পলো গ্রাউন্ডে দেখাবো। সেখানে ১০ লাখ লোকের সমাগম হবে। শেখ হাসিনা যাবেন। আপনারা ১০ লাখ মুখে বলবেন, আমরা বাস্তবে দেখাবো। আপনাদেরটা বাস্তবে সত্য নয়।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘খেলা হবে। আন্দোলনে খেলা হবে। নির্বাচনে খেলা হবে। ভোট চুরির বিরুদ্ধে খেলা হবে। ভোট জালিয়াতির বিরুদ্ধে খেলা হবে। খেলা হবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে। যারা ১৭ কোটি মানুষের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলে তাদের বিরুদ্ধে খেলা হবে। খেলা হবে প্রহসনের নির্বাচনের বিরুদ্ধে।’

‘বিএনপি এদেশের স্বাধীনতার আদর্শ গিলে ফেলেছে। তারা যদি ক্ষমতায় যেতে পারে দেশশুদ্ধ গিলে ফেলবে। সাবধান থাকতে হবে না? দেখেন না কী রকম মারমুখো? মরণ কামড় আর জীবন কামড়। যে কামড়ই দেন। সাবধান। বিএনপি থেকে সাবধান। বড় লোকদের বাড়ির সামনে লেখা থাকে কুকুর থেকে সাবধান। আমরা বলি, বিএনপি থেকে সাবধান।’

বিএনপি মারমুখি আচরণ করছে অভিযোগ করে ওবায়দুল কাদের দলটিকে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি দেওয়ার পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, ‘তত্ত্বাবধায়কের ভূত মাথা থেকে নামিয়ে ফেলুন। সেটা আর হবে না। আদালত মিউজিয়ামে পাঠিয়েছে। আমাদের দোষ নেই। আমরা তো নিষিদ্ধ করিনি। নির্বাচনে যাবেন না? যাবেন। গাধা পানি ঘোলা করে খায়। সময় এলে দেখা যাবে।’

আওয়ামী লীগের এই শীর্ষ নেতা বলেন, ‘জনগণ বিএনপিকে ভোট দেবে না। তাদের সঙ্গে জনগণ নেই। যত নাচানাচি লাফালাফি করেন। কর্মীদের বোঝাচ্ছেন। ক্ষমতায় আসি আসি। এত আহ্লাদ! এত সুখ! ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগ বিজয়ী হবে। বিএনপি এত তাফালিং করছে কেন জানেন? ভোট হলে শেখ হাসিনার সঙ্গে হেরে যাবেন ফখরুল। রেগে গেলে আরও হেরে যাবেন। আর রাগ কইরেন না।’

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, ‘বিএনপি দেশকে জঙ্গিবাদী রাষ্ট্র বানাতে চায়। আমরা বেঁচে থাকতে সেটি হতে দেবো না। জিয়াউর রহমান বেঁচে থাকলে বঙ্গবন্ধু, শেখ কামাল, শেখ রাসেলকে হত্যার দায়ে তার ফাঁসি হতো।’

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, ‘বিএনপি এখন বড় বড় কথা বলছে। তত্ত্বাবধায়ক সরকার না হলে নাকি তারা নির্বাচনে আসবে না। আমরা বলে দিতে চাই, সংবিধান অনুযায়ী আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে। কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না। তারা নির্বাচনে এলে আসবে, না এলে নাই।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘বিএনপি আওয়ামী লীগকে অপসারণের পরিকল্পনা করছে। কিছুদিন ধরে শুনছি ১০ ডিসেম্বর তারা (বিএনপি) ঢাকা দখল করবে, আমাদের তাড়িয়ে দেবে। আমরা শুনছি, তারা ঘোষণা করেনি। আমরা শুনছি, তারা মন্ত্রিপরিষদও গঠন করে ফেলেছে। আওয়ামী লীগ সব সময় জনগণকে নিয়ে চলে। এদেশের জনগণ ভুল করবে না। তারা আওয়ামী লীগ ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবে।’

সম্মেলনে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে বেনজীর আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক হিসাবে পনিরুজ্জামান তরুণের নাম ঘোষণা করেন ওবায়দুল কাদের। বেনজীর সদ্য বিদায়ী কমিটির সভাপতি ও তরুণ সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন।

সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুর রাজ্জাক, কামরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি, আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, কার্যনির্বাহী সদস্য এবিএম রিয়াজুল কবীর কাওছার, আনোয়ার হোসেন, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, ত্রাণ ও দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান প্রমুখ।

More news
© All rights reserved &copy | 2016 dhaka24.net
Theme Customized BY WooHostBD